বাংলাদেশকে নতুন সদস্য হিসেবে চায় ব্রিকস ব্যাংক
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বাংলাদেশকে নতুন সদস্য হিসেবে চায় ব্রিকস ব্যাংক

উদীয়মান ৫ দেশের অর্থনৈতিক জোট ব্রিকস তাদের পরিচালিত নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এনডিবি) সদস্য করতে বাংলাদেশকে প্রস্তাব দিয়েছে। সদস্য হলে ব্যাংকটিতে সমান ভোটাধিকার পাবে বাংলাদেশও।

অর্থমন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের বরাতে ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসের খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

২০১৫ সালে যাত্রা করে এনডিবি

কর্মকর্তারা জানান, ব্রিকস ব্যাংক সদস্য করতে যে ১৫টি দেশের তালিকা করছে, সম্প্রতি ওয়াশিংটনে এনডিবি প্রেসিডেন্ট কে ভি কামাথ তাতে বাংলাদেশকে যুক্ত হওয়ার প্রস্তাব দেন।

ওয়াশিংটনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এমন এক কর্মকর্তা বলেন, ২০১৫ সালের জুলাইতে ব্রিকসের ৫ দেশ নিয়ে যাত্রা করে এনডিবি। বহুপাক্ষিক এ ব্যাংকটি শিগগির নতুন ১৫ সদস্য যুক্ত করতে যাচ্ছে। আর তাতে বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার প্রস্তাব রেখেছে।

গত মাসের শেষ দিকে ওয়াশিংটনে আইএমএফ-বিশ্বব্যাংকের বসন্তকালীন সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতও উপস্থিত ছিলেন। সভায় এনডিবির প্রেসিডেন্ট এম ভি কামাথের সঙ্গে এক পার্শ্ব বৈঠক হয় অর্থমন্ত্রীর। বৈঠকে এই প্রস্তাব আসে। ।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় উদীয়মান অর্থনীতির দেশ ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার (ব্রিকস) উদ্যোগে গঠিত নতুন এই ব্যাংককে এই দেশগুলোতে অবকাঠামো উন্নয়ন ও উন্নয়ন প্রকল্পে অর্থায়নের ক্ষেত্রে বিশ্ব ব্যাংক ও আইএমএফের বিকল্প হিসেবে ভাবা হচ্ছে।

প্রাথমিকভাবে ব্যাংকটির অনুমোদিত মূলধন ১০০ বিলিয়ন ডলার; যা ১০ লাখ শেয়ারে বিভক্ত। এর প্রতিটির মূল্য হবে ১ লাখ ডলার।

এর মধ্যে চীন ৪১ বিলিয়ন ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে; ব্রাজিল, ভারত ও রাশিয়া ১৮ বিলিয়ন ডলার করে এবং দক্ষিণ আফ্রিকা ৫ বিলিয়ন ডলার দিবে।

বর্তমানে ব্যাংকটির প্রতিশ্রুত মূলধন ৫০ বিলিয়ন ডলার। ব্রিকসের ৫ সদস্য দেশ সমানভাবে এখানে অর্থ দিচ্ছে এবং প্রতিটি দেশেরই সমান ভোটাধিকার রয়েছে।

চীনের বাণিজ্যিক রাজধানী সাংহাইয়ে এর প্রধান কার্যালয়।

অর্থমন্ত্রণালয় কর্মকর্তা জানান, এর আগে ২০১৩-১৪ সালে বাংলাদেশকে সদস্য করার ব্যাপারে প্রাথমিক আলোচনা হয়। কিন্তু ব্রিকসের বাইরে অন্যান্য দেশের জন্য যে শর্ত দেওয়া হয়েছিল তা পূরণ না হওয়ায় বাংলাদেশ যোগদান করেনি।

তিনি বলেন, এনডিবি প্রেসিডেন্ট বলেছেন, তারা ব্যাংকের জন্য আরও ১৫ দেশকে অন্তুর্ভুক্ত করতে চায়। তিনি বাংলাদেশকে আবারও যোগ দেওয়ার অনুরোধ করেন। এসময় অর্থমন্ত্রী আবুল আল আবদুল মুহিত ইতিবাচক সাড়া দেন।

তিনি আরও বলেন, অর্থমন্ত্রী এসময় কামাথকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তাবপত্র পাঠাতে বলেন। অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাব পাঠানোর পর বাংলাদেশ তা ভেবে দেখবে।”

উল্লেখ, উদীয়মান ব্যাংকটি ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠাতা দেশগুলোর ৫ প্রকল্পে ২০০ কোটি ডলারের ঋণের অনুমোদন দিয়েছে।

এস

এই বিভাগের আরো সংবাদ