মাত্র ৪ দিনেই শুকিয়ে গেলো নদী!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মাত্র ৪ দিনেই শুকিয়ে গেলো নদী!

নদী কেন্দ্রিক অনেক ঘটনাই আমাদের অজানা। আবার গণমাধ্যমের কল্যাণে অনেক বিস্ময়কর ঘটনা আবার আমরা জানি। যেমন নদীর নিচে আরেকটি নদী, রক্তবর্ণের পানির নদী, একই নদীর পাশাপাশি দুটি জলের ধারা ইত্যাদি।

তবে আধুনিক যুগে এই প্রথম এমন ঘটনা প্রত্যক্ষ করলেন বিজ্ঞানীরা।মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে শুকিয়ে গেল একটা নদী। ঘটনাটি ঘটেছে কানাডায়। এর আগে প্রাগৈতিহাসিক যুগে এমন ঘটনা ঘটার কথা জানা গেলেও আধুনিক যুগে এমন ঘটনার কোনও তথ্য বিজ্ঞানে পাওয়া যায়নি।

কানাডার এই নদীরই গতিপথ বদলে গিয়েছে।

কাসকায়ালশ হিমবাহ থেকে স্লিমস নদীতে জল প্রবাহিত হয়ে প্রশান্ত মহাসাগরে গিয়ে পড়তো। গত ৩০০-৩৫০ বছর ধরে চলেও আসলেও ২০১৬ সালের মে মাসের ২৬ থেকে ২৯ তারিখের মধ্যেই নদীটি শুকিয়ে গিয়েছে। এবং এটি স্থায়ীভাবেই হয়েছে বলে বেঙ্গালি ওয়ান ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে জানা গেছে। কেন এমন হয়েছে তা জানতে বিজ্ঞানীরা গবেষণা শুরু করলে রিভার পাইরেসি’ তত্ত্বটি সামনে উঠে আসে। বর্তমান সময়ে বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে হিমবাহের গলে যাওয়া জলের পথ পরিবর্তন হয়। ফলে স্লিমস নদীর দিকে সেই জল ধাবিত না হয়ে দক্ষিণ-পূর্ব দিকে নতুন পথে ধাবিত হয়ে মহাসাগরে গিয়ে পড়ছে।

এই ‘রিভার পাইরেসি’র মাধ্যমে একটি নদীর প্রবাহ আর একটিকে কব্জা করে ফেলে। বৈজ্ঞানিক ইতিহাস বলছে, এমনটা হতে কয়েক হাজার বছর সময় লাগে। তবে কানাডার স্লিমস নদীর ক্ষেত্রে মাত্র ৪ দিনেই শুকিয়ে যাওয়াকে অভূতপূর্ব ঘটনা বলছেন বিজ্ঞানীরা।

আগের দিকে প্রবাহিত না হয়ে এখন অন্যদিকে প্রবাহিত হচ্ছে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, শুধুমাত্র মানুষের দ্বারা সংঘটিত পরিবেশের দুর্নিবার ক্ষতির কারণেই এমনটি হয়েছে। বিশ্ব উষ্ণায়ন হয়ে আস্ত নদীর জলের প্রবাহ পথ পরিবর্তন করে একটি নদীকে মাত্র ৪ দিনেই শুকিয়ে দিয়েছে। আর এর ফলে আগামী দিনে ভয়ঙ্কর কিছু ঘটতে চলেছে সতর্ক করেছেন বিজ্ঞানীরা।

অর্থসূচক/কাঙাল মিঠুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ