"আমার শহর চট্টগ্রাম, বৃষ্টিতে সুইমিং পুল হইয়া যায়"
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

“আমার শহর চট্টগ্রাম, বৃষ্টিতে সুইমিং পুল হইয়া যায়”

“শহরের প্রায় রাস্তা পানিতে তলিয়ে সুইমিং পুল হইয়া গেছে। দেখছেন আপনি ? নাকি এখনো গুড মর্নিং অয় নাই? আপনি নির্বাচিত যেইভাবে হইছেন সেই ভাবে অন্য কোন প্রার্থী মেয়র নির্বাচিত হইতে পারে নাই এই যাবত! আপনার কপাল ভালো। আপনি কিছু উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তার মধ্যে একটা “ক্লিন সিটি সেইফ সিটি”। আপনার ক্ষমতার আমল বহুত দিন হয়ে গেছে। সত্য কথা কনতো , চট্টগ্রাম কি “ক্লিন সিটি সেইফ সিটি” হইছে ?” জিপসি রুদ্র নামে চট্টগ্রাম নগরীর একজন বাসিন্দা মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে উদ্দেশ্য করে এই কথাগুলো লিখেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

মুরাদপুর ফ্লাইওভারের নিচ থেকে তোলা।

তিনি আরও লিখেন, সভ্য দেশের শহরগুলো আমার চট্টগ্রামের মতো হয় না। সভ্য দেশের শহর গুলো হয় পরিস্কার পছিচ্ছন্ন এবং ফকফকা। বাট আমার শহর চট্টগ্রাম, বৃষ্টিতে সুইমিং পুল হইয়া যায়।

চট্টগ্রামে মাত্র ২ ঘন্টার বৃষ্টিতে শহরের নিম্নাঞ্চলে পানি জমেছে হাঁটু পর্যন্ত। এই জলাবদ্ধতা জন্য নগরীর বাসিন্দারা সিটি মেয়রকে ফেসবুকে এক হাত দিচ্ছে।

আজ শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে ৯টা পর্যন্ত মোট ৩২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জানা গেছে। নগরীর ষোলশহর দুই নম্বর গেট এলাকায় চশমা খালের পানি স্বাভাবিক গতিতে নামতে না পেরে সড়কে জলজট সৃষ্টি হয়েছে।

বাদুরতলা, বহদ্দারহাট, চকবাজার, কাতালগঞ্জ, প্রবর্তক মোড়, চান্দগাঁওয়ের কিছু কিছু এলাকায় জলজট সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

.

যদিও সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় সাধারণ মানুষকে দুর্ভোগ কম পোহাতে হচ্ছে। তবে যারা প্রয়োজনে বাহির হচ্ছে তাদের দুর্ভোগের সীমা নেই।

একটি প্রাইভেট কোম্পানির কর্মকর্তা মুহাম্মদ জামশেদ খান তার নিজের ফেসবুকে লিখেন, এটা কি উন্নয়ন? একটু খানি বৃষ্টি হলেই জমে যাচ্ছে পানি। জলবদ্ধতা কমাতে সিটি কর্পোরেশন এত টাকা কোথায় যায়?  নাকি মুখে বলে কাজ শেষ মাননীয় মেয়র সাহেব?

একটি বেসরকারি টেলিভিশনের কর্মকর্তা শিহাব উদ্দীন লিখেছেন, মেয়র মহোদয়ের স্বপ্নের মেগা সিটি চট্টগ্রাম নগর যেন সুইমিংপুল!!!! এখানে নগরীর আউটার স্টেডিয়ামে সুইমিংপুল নিয়ে গত দুই দিন আগে যে ঘটনা তার ইঙ্গিত দিয়েছেন তিন।

২ নং গেট এলাকা থেকে তোলা।

চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিয়ে অনেক মেয়র আশা দিলেও সেই আশা, আশাতেই রয়ে গেছে। কিন্তু কোন কাজ না হওয়ার ফলে এই শহরের জলাবদ্ধতা স্থায়ী রূপ নিয়েছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে সকল স্তরের লোকদের নিয়ে একদাথে কাজ করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন নগর পরিকল্পনাবিদরা।

অর্থসূচক/সুমন/কাঙাল মিঠুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ