দুধ খাচ্ছেন...তবে সাবধান
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

দুধ খাচ্ছেন…তবে সাবধান

দুধে প্রচুর পুষ্টি-উপাদান থাকে। ক্যালসিয়াম ছাড়া দুধের মধ্যে ফসফরাস, আয়রন, জিংক, কপার, ম্যাঙ্গানিজের পরিমাণও অনেক বেশি থাকে। দুধ খাওয়ার উপকারিতা অনেক। মানবদেহের হাড় নিয়ে গবেষণা করে একটি ব্রিটিশ সংস্থা বলছে, তরুণ বয়সে যারা দুধ এবং দুগ্ধজাত খাবার খান নি তাদের জন্য ভবিষ্যতে বিপদ আছে। কিন্তু গবেষণায় দেখা গেছে গরুর দুধ হচ্ছে ক্যালসিয়ামের সবচেয়ে ভালো উৎস।

জরিপে দেখা গেছে যাদের বয়স ২৫ বছরের কম তাদের মধ্যে পাঁচ ভাগের এক ভাগ তাদের খাদ্য তালিকা থেকে দুধ অথবা দুগ্ধজাত খাবার বাদ দিচ্ছেন।

এর ফলে অনেক তরুণ তাদের স্বাস্থ্যকে ঝুঁকির দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

দুধ। সংগৃহীত ছবি।

সংস্থাটি বলছে কেউ যদি দুধ খেতে না চায় তাহলে দুধের পুষ্টিগুণ সম্পন্ন বিকল্প খাবার খাওয়া উচিত। দুধ এবং দুগ্ধজাত খাবার যেমন পনির এবং দই ক্যালসিয়ামের একটি বড় উৎস যেটি শক্ত হাড় গঠনের জন্য বেশ প্রয়োজনীয়।

তবে তরুণরা খাদ্য তালিকা থেকে দুধ কেন বাদ দিচ্ছে তার পরিষ্কার কোন উত্তর পাওয়া যাচ্ছে না । মানবদেহের হাঁড় নিয়ে গবেষণাকারী সংস্থাটি বলছে, অনেক তরুণ তাদের খাদ্য তালিকার জন্য বিভিন্ন ধরনের ইন্টারনেট ব্লগ থেকে পাওয়া তথ্যের উপর নির্ভর করে।

ব্লগ থেকে নেয়া তথ্য অনেক সময় বেশ ভালো। তবে অনেকে তাদের খাদ্য তালিকা নিয়ে বেশি সতর্ক থাকেন। কোনটি খাবেন আর কোনটি খাবেন না সে বিষয়ে তারা অতিমাত্রায় সতর্ক থাকেন।

ব্রিটেনে খাদ্যের মান নিয়ে গবেষণা করে এমন একটি সংস্থা বলছে ১৬ থেকে ২৪ বছর বয়সী প্রায় অর্ধেক উত্তরদাতা জানিয়েছেন গরুর দুধ এবং দুগ্ধজাত খাবার তাদের জন্য সহনীয় নয়।

একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তির জন্য প্রতিদিন ৭০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন হয়। তবে ১১ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের জন্য প্রতিদিন এক হাজার মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম দরকার।

কিন্তু ব্রিটেনে বলছে ১৬ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের মধ্যে এক চতুর্থাংশ দিনে ৪০০ মিলিগ্রামের নিচে ক্যালসিয়াম গ্রহণ করে।

তরুণ বয়সে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি থাকলে তার প্রভাব পড়ে বৃদ্ধ বয়সে। বিশেষ করে ৫০ বছরের পর থেকে বেশ দ্রুত হাঁড় ক্ষয়ের সম্ভাবনা তৈরি হয়।

দুধ। সংগৃহীত ছবি।

তবে এ প্রবণতা নারীদের ক্ষেত্রে আরো বেশি তৈরি হয় বলে গবেষণা থেকে জানা যায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন শরীরের ক্যালসিয়ামের চাহিদা যে শুধু দুধ এবং দুগ্ধজাত খাবার থেকেই গ্রহণ করতে হবে বিষয়টি সে রকম নয়। অন্য উৎস থেকে ক্যালসিয়াম পাওয়া গেলেও সেটি শরীরের জন্য ভালো। এবার জেনে নেই দুধ খেলেও যে মানুষের ক্ষতি হতে পারে।

সতর্কতা:

আমরা ৫ ধরনের মানুষের কথা বলব, দুধ পান করার ক্ষেত্রে যাদের সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।

১. অ্যানিমিয়ার রোগীদের কথা। যারা রক্তস্বল্পতায় ভুগছেন, তারা দুধ খাওয়ার ব্যাপারে সাবধান।

২. যাদের পেটে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে তাদের জন্য দুধপান নিষিদ্ধ।

৩. যাদের পরিপাকতন্ত্রে আলসার আছে, তাদের জন্যও দুধ খাওয়া নিষিদ্ধ।

৪.  যাদের খাদ্যনালীতে ক্ষতরোগ আছে তারা দুধ খাওয়ার ব্যাপারে সাবধান হবেন।

৫. যাদের শরীরে ল্যাকটোবায়োনিক এসিড বা সুগার এসিডের অভাব আছে, তাদেরকে দুধ খাওয়ার ব্যাপারে সাবধানতা অবলম্বন করতে বলেন চিকিৎকরা।

অর্থসূচক/তাবাচ্ছুম/কাঙাল মিঠুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ