রাস্তার জমিতে নির্মিত ১০ তলা ভবন ভাঙবে চউক
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রাস্তার জমিতে নির্মিত ১০ তলা ভবন ভাঙবে চউক

চট্টগ্রাম নগরীর বাস্তবায়নাধীন বাকলিয়া এক্সেস রোডের ওপর নির্মিত মৌসুমী আবাসিক এলাকার ১০ তলা একটি ভবন ভাঙার পরিকল্পনা করেছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক)। এজন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নগরীর চন্দনপুরা থেকে শাহ আমানত সেতু পর্যন্ত একটি সড়ক নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। ২০৬ কোটি টাকা ব্যয়ে এই সড়ক নির্মাণের বিষয়টি ১৯৯৫ সালের চট্টগ্রাম উন্নয়ন মহাপরিকল্পনায় উল্লেখ রয়েছে।

CDA

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক) ভবন।

এই সড়কের জন্য নির্ধারিত ভূমিতে গত ২২ বছর ধরেই কোনো অবকাঠামোর অনুমোদন দেয়নি চউক। কিন্তু ২০১৩ সালের অনুমোদন দেখিয়ে মৌসুমী আবাসিক এলাকার জায়গায় ১০ তলা বাড়ি নির্মাণ করেন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কর্নেল (অব.) মোহাম্মদ ইকবাল। ওই ভবনের কারণে চন্দনপুরা থেকে শাহ আমানত সেতু পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ কার্যক্রম শুরু করা যায়নি। ২০১৯ সালের জুনের মধ্যে ওই সড়কের কাজ শেষ করার কথা রয়েছে।

চউক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, অনুমতি বাতিল করা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। তবে ওই ভবন ভাঙার বিষয়ে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। একটি কমিটি গঠন করেছি। প্রতিবেদন পাওয়ার পর সে অনুযায়ী কাজ করবো।

তিনি জানান, এই সড়কের ভূমিতে কীভাবে ভবন নির্মাণের অনুমোদন দেওয়া হলো- তা তদন্তের জন্য ৪ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। চউক বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর মো. গিয়াস উদ্দিনকে প্রধান করে গঠিত ওই কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- চউকের প্রধান প্রকৌশলী জসিম উদ্দিন চৌধুরী, উপ-প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ শাহীনুল ইসলাম খান ও নির্বাহী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান।

এ প্রসঙ্গে মাহফুজুর রহমান অর্থসূচককে বলেন, সড়কের ভূমিতে নির্মিত ভবন ভাঙার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে কমিটির প্রধান দেশের বাইরে থাকায় এখনও কাজ শুরু হয়নি। আশা করছি, আগামী সপ্তাহেই আমরা অনুসন্ধান শুরু করতে পারবো।

অর্থসূচক/সুমন/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ