স্কুলের বেতন হিসেবে ছাগল-ভেড়া!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

স্কুলের বেতন হিসেবে ছাগল-ভেড়া!

শিক্ষার হার বাড়াতে বিভিন্ন দেশের সরকার বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন উদ্যোগ নিতে দেখা গেছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের নেওয়া বিনা বেতন এবং শিক্ষাবৃত্তি কার্যক্রম বেশ ফলপ্রসু হয়েছে। শিক্ষা নিয়ে এবার আলোচনায় এসেছে জিম্বাবুয়ে সরকারের নতুন উদ্যোগ।

জিম্বাবুয়ের শিক্ষামন্ত্রী লাজারুস ডোকোরা ঘোষণা করেছেন, স্কুলে শিক্ষার্থীদের বেতন হিসেবে ছাগল ও ভেড়ার মতো পোষা প্রাণি দেওয়া যাবে।

Zimbabwe School

জিম্বাবুয়ের হারেরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

সম্প্রতি দেশটির সরকারপন্থী সংবাদমাধ্যম সানডে মেইলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের পিতা-মাতার কাছ থেকে মাসিক বেতন আদায়ে স্কুল কর্তৃপক্ষকে নমনীয় হতে হবে। এখন থেকে বেতন হিসেবে ছাগল-ভেড়ার মতো গবাদি পশু দেওয়া যাবে।

লাজারুস ডোকোরা বলেন, শুধু গবাদিপশু নয়; বেতনের বিকল্প হিসেবে নানা ধরনের সেবাও গ্রহণ করা যেতে পারে। যেমন: কোনো শিক্ষার্থীর অভিভাবক যদি রাজমিস্ত্রি হন; তবে তাকে দিয়ে স্কুলে রাজমিস্ত্রির কাজ করিয়ে নেওয়া যেতে পারে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণার পর জিম্বাবুয়ের কোনো কোনো স্কুলে ইতোমধ্যে নগদ অর্থের বদলে বেতন হিসেবে গবাদিপশু নেওয়া শুরু হয়েছে।

এদিকে গরু, ছাগল, ভেড়ার মতো গৃহপালিত পশুকে জামানত হিসেবে নেওয়া শুরু করেছে জিম্বাবুয়ের ব্যাংকগুলো; নগদ অর্থের চরম সংকট দেখা দেওয়ায় গত সপ্তাহে এ নিয়ম চালু হয়েছে।

এর আগে গত সপ্তাহে জিম্বাবুয়ের সংসদে জামানত বিষয়ে একটি বিল পাস হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, মোটরগাড়ি বা যন্ত্রপাতির মতো অস্থাবর সম্পত্তিকেও জামানত হিসেবে নিতে পারবে ব্যাংক।

বিবিসির প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, জিম্বাবুয়েতে নগদ অর্থের সংকট দেখা দেওয়ার পর ব্যাংক থেকে অর্থ তুলতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন অনেকেই। আর এতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হচ্ছে হিসাবধারীদের।

এদিকে সরকার অভিযোগ করছে, এক শ্রেণির মানুষ দেশ থেকে অর্থ পাচার করছে বলেই- হঠাৎ অর্থ সংকট তৈরি হয়েছে। কিন্তু সমালোচকরা মনে করেন, বিনিয়োগ সংকট এবং বেকারত্বই এই পরিস্থিতির জন্য দায়ী।

অর্থসূচক/তাবাচ্ছুম/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ