সংবিধান অনুযায়ীই নির্বাচন : নাসিম

Mohamod Nasim

Nasimআওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও চৌদ্দ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাছিম বলেছেন, আগামি নির্বাচন জানুয়ারির ৫ তারিখেই হবে এবং সংবিধান অনুযায়ীই হবে।

রোববার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর ধানমণ্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে চৌদ্দ দলের সাথে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিদেশি বন্ধুরা আমাদের দেশে এসেছেন। তারা দেখছেন দেশ সংবিধান অনুযায়ী চলছে আর আগামী নির্বাচনও সংবিধান অনুযায়ী হবে। আগামি নির্বাচন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের জন্য চৌদ্দ দল নির্বাচনী প্রচারের পাশাপাশি মাঠে ময়দানে থাকবে।

নাছিম বলেন, বিএনপি-জামাত গণতন্ত্রের পথ পরিহার করে সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে। তারা প্রকশ্য রাজনীতি ছেড়ে আন্ডার গ্রাউন্ডে চলে গেছে। সুধু জামায়াত-শিবির ও বিএনপির সন্ত্রাসীরা মাঠে তেকে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। আর তাদের মদদ দিচ্ছে বিএনপি নেতারা। খালেদা জিয়া সুধু ঘরে বসে আছে আর বিএনপির সব নেতাই আন্ডারগ্রাউন্ডে চলে গেছে। রাজনীতি প্রকাশ্যে হবে আর তার মোকাবালাও প্রকাশ্যে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বিএনপি সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়ে গোপন স্থান থেকে ভিডিও বার্তা পাঠাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সভ্য দেশে গোপন স্থান থেকে বিডিও বার্তার মাধ্যমে সহিংসতার নির্দেষ দিয়ে। যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর চেষ্টা করছে। যারা দণ্ডপ্রাপ্ত হয়েছে তাদের রায খুব দ্রুত কার্যকর করা হবে। বাংলাদেশের কোনো অপশক্তি তাদেরকে বাঁচাতে পারবে না।

নেলসন ম্যান্ডেলার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, সারা বিশ্বের মানুষ যখন অবিসংবাদিত এই নেতার মৃত্যতে শোকে হতবিহ্বল তখন বিএনপি মানুষ হত্যার পথ বেছে নিয়েছে। তাদের হাত থেকে সাধারণ মানুষ, শ্রমিক-ড্রাইবার, নারী-শিশু কেউই রেহায় পাচ্ছে না। রাষ্ট্রীয় শোকের সময় তাদেরকে অবরোধ তুলে নেওয়ার আহ্বান জানানো হলেও অভদ্রচরিত্র দেখিয়ে শোকের মাধুর্য ও গাম্ভির্যকে নষ্ট করেছে।

স্বাধীনতার এই মাসে ১০ ডিসেম্বরে চৌদ্দ দলের সমন্বয়ে নির্বাচনী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন এই নেতা।

নির্বাচনকমিশনের ঘোষিত সময় অনুযায়ী ৫ জানুয়ারি নির্বাচন হবেই বলে জানিয়েছেন ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

রোববার আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর ধানমণ্ডির কার্যালয়ে  চৌদ্দ দলের বৈঠক শেষে এই  কথা বলেন  মোহাম্মদ  নাসিম।

জাতিসংঘের প্রতিনিধি দলের বাংলাদেশ সফরকে ইঙ্গিত করে নাসিম বলেন, বিদেশি বন্ধুদের বাংলাদেশ সফরকে স্বাগত জানাই। কিন্তু ১৪ দল স্পষ্ট ভাষায় জানাতে চায়, সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা এবং গণতন্ত্রকে যারা নস্যাৎ করতে চায় তাদের ক্ষেত্রে কোনো ছাড় নেই।

নাসিম বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে চৌদ্দ দল একত্রে দেশব্যাপী কাজ করবে। বিজয়ের এই মাসে সকল ষড়যন্ত্রকে প্রতিরোধ করবে।

তিনি আরও বলেন, আগে টিভি মিডিয়ানা থাকায় আন্ডারগ্রাউন্ডে থেকে সন্ত্রাসীরা বার্তা পাঠাত। সেই ধারাবাহিকতা রক্ষা করছে বিএনপি। তারা নিষিদ্ধ দলে পরিণত হয়েছে। বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ছাড়া বিএনপির সব নেতারা আন্ডার গ্রাউন্ডে চলে গেছেন।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচাররের বিষয়ে নাসিম বলেন, ‘কোনো চক্রান্তই যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে পারবে না। যাদের চূড়ান্ত রায় হয়ে গেছে তাদের শাস্তি ভোগ করতে ইহবে। কাদের মোল্লার ফাসি অবশ্যই কার্যকর হবে।

বৈঠকের শুরুতে সম্প্রতি প্রয়াত দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক প্রসিডেন্ট নেলসনম্যান্ডেলার স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

নাসিম বলেন, প্রয়াত এই নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সারাবিশ্ব যখন মাথা নিচু করেছে সেখানে বিএনপির পক্ষ থেকে সামান্যতম সাড়া পাওয়া যায়নি।

সাম্যবাদী  দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে  অন্যান্যের মধ্যে বৈঠকে উপস্থিত  ছিলেন নূহ-উল আলম লেনিন, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, মঈন উদ্দিন খান বাদল, শরীফ নূরুল আম্বিয়া, নাজমুল হক প্রধান প্রমুখ।

এমআইকে/এআর