মোবাইল ব্যাংকিং আরও বাড়াতে হবে: অর্থমন্ত্রী
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মোবাইল ব্যাংকিং আরও বাড়াতে হবে: অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, দেশে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা এগিয়ে যাচ্ছে। তবে তা এখনো অপ্রতুল। এ সেবা আরও বাড়াতে হবে। আজ সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মেঘনা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ট্যাপ এন পের  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

বক্তব্য রাখছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ছবি মহুবার রহমান

অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের গুরুত্ব অপরিসীম। মোবাইল ব্যাংকিং এগিয়ে যাচ্ছে। এই ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বছরে যে লেনদেন হচ্ছে। সেটা আরও বাড়াতে হবে। এ সেবা আরও প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দিতে হবে।

এ সময় বাংলাদেশে বিভিন্ন ব্যাংকের শাখা বাড়ানোর ওপরও গুরুত্বারোপ করেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যাংকের শাখা এখনো অপ্রতুল। দেশে ৫৬ হাজার মৌজা রয়েছে। সে অনুযায়ী শাখা নেই। এই শাখাও বাড়াতে হবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের গুরুত্ব অপরিসীম। বর্তমানে ১৩ কোটি মানুষ মোবাইল ব্যবহার করলেও; মোবাইল ব্যাংকিং সেবা প্রসারিত হয়নি।

তিনি বলেন, মোবাইল ব্যাংকিং এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে প্রতিমাসে এর মাধ্যমে মাত্র ২৫ হাজার কোটি টাকা লেনদেন হচ্ছে। তবে এটা আরও বাড়াতে হবে। এ সেবা আরও প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দিতে হবে।

ছবি মহুবার রহমান

এ সময় বাংলাদেশে বিভিন্ন ব্যাংকের শাখা বাড়ানোর ওপরও গুরুত্বারোপ করেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যাংকের শাখা এখনো অপ্রতুল। দেশে ৫৬ হাজার মৌজা রয়েছে। সে অনুযায়ী শাখা নেই। এই শাখাও বাড়াতে হবে।

আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, দেশে মোট ৫৬টি ব্যাংক রয়েছে। এর মধ্যে ৩৯টি বেসরকারি ব্যাংক। এর মধ্যে ৩২টি ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দেওয়ার কথা থাকলেও সবাই এ সেবা দিচ্ছে না।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের উন্নত দেশেগুলোর তুলনায় আমরা কম সম্পদশালী। তবে আর্থিক মুদ্রাস্ফীতির মাধ্যমে আমাদের সম্পদ বাড়ছে; তবে এই সম্পদটাকে ছড়িয়ে দিতে হবে। সে জন্য আমাদের ব্যাংকিং সেবা আরও বিস্তৃত হওয়া প্রয়োজন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বর্তমানে সরকার ৬৫ হাজার কোটি টাকা দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে ব্যয় করে থাকে। তবে এটা পৌঁছাতে দীর্ঘ সময় নেয়। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে এই টাকা পৌঁছানো অনেক সহজ হবে।

ভবিষ্যতে ওই টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মেঘনা ব্যাংক ট্যাপ এন পে’র ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর মমতাজ বেগম। এছাড়া আরও ছিলেন মেঘনা ব্যাংকের চেয়ারম্যান এইচ এন আশিকুর রহমান, মোবিলিটি আই ট্যাপ পে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও ড. কামরুল আহসান, মোবিলিটি আই ট্যাপ পে বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ড. মো. জহির উদ্দিন, পরিচালক কেইকো তানিদা, লে: কর্নেল এম এ লতিফ খান (অব:), মোবিলিটি আই ট্যাপ পে বাংলাদেশ লিমিটেডের জয়েন্ট ভেনচার পার্টনার মোবিলিটি ওয়ান মালয়েশিয়ার সিইও দাতো হুসাইন বিন এ রহমান প্রমুখ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ