বস্ত্র আইন-২০১৭ এর খসড়ার অনুমোদন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বস্ত্র আইন-২০১৭ এর খসড়ার অনুমোদন

বস্ত্র খাতে টেকসই উন্নয়ন, উদ্যোক্তাদের সহায়তা প্রদান, বিনিয়োগ আকর্ষণ, রপ্তানি বৃদ্ধি, শিল্পের আধুনিকায়ন, মাননিয়ন্ত্রণ ও দক্ষ জনবল তৈরির লক্ষ্যে বস্ত্র আইন-২০১৭ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।  এর মাধ্যমে মূলত রপ্তানিমুখী বস্ত্র খাতকে আইনি কাঠামোয় আনা হয়েছে ।

আজ সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের জানান, নতুন আইনে, সংঘটিত অপরাধে কঠোর শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। আইনে মোট ২২টি ধারা রয়েছে।

এর মধ্যে মধ্যে রয়েছে— রাষ্ট্রায়ত্ত বস্ত্র কারখানাগুলোর ব্যবস্থাপনা ও তদারকি, বিনিয়োগ উন্নয়ন ও সহায়তা প্রদান, খাতের উন্নয়নে তহবিল গঠন, মাননিয়ন্ত্রণ, তদারকি ও সমন্বয়, খাতের শিল্প নিবন্ধন, দক্ষ জনবল তৈরি ও মানবসম্পদ উন্নয়ন, গবেষণাকল্পে তথ্যভাণ্ডার প্রতিষ্ঠা ও সংরক্ষণ, তথ্যাদি প্রদান ও মূল্য স্থিতিকরণ, অপরাধ ও দণ্ড, বিচার ও আপিল।

নতুন আইন অনুযায়ী, আইনের অধীনে বাধ্যবাধকতা থাকা সত্ত্বেও নিবন্ধন গ্রহণ বা নিবন্ধন নবায়ন না করা হলে তা অপরাধ বলে গণ্য হবে। আবার নিবন্ধন বাতিল বা স্থগিত হওয়ার পর আপিল ব্যতিরেকে বস্ত্র শিল্প বা কারখানার কার্যক্রম অব্যাহত রাখলেও তা অপরাধ হবে।

সরকার বা পোষক কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তার পরিদর্শন কাজে বাধা প্রদান বা অসহযোগিতাও হবে অপরাধ।

কেউ যদি নকল বা ডুপ্লিকেট নিবন্ধন বা এমন কোনো রেকর্ড রক্ষণাবেক্ষণ করেন, যা সঠিক নয় এবং তা যদি কর্মকর্তার পরিদর্শনকালে উপস্থাপন করেন, তবে তাও অপরাধ বলে গণ্য হবে।

অর্থসূচক/আজম

এই বিভাগের আরো সংবাদ