মাত্র ৭০০ টাকায় মানিব্যাগ, চাবির রিং হারানোর সমাধান
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মাত্র ৭০০ টাকায় মানিব্যাগ, চাবির রিং হারানোর সমাধান

প্রযুক্তি এখন জীবন যাপনকে অনেক সহজ করেছে। গ্যাজেট ব্লুটুথ ট্র্যাকার তার একটি দারুণ উদাহরণ। স্বল্প মূল্যের একটি ট্র্যাকার হচ্ছে নাট ব্লুটুথ ট্র্যাকার ২। ছোটখাট কিন্তু জরুরি জিনিস, যেমন চাবি বা ওয়ালেট খুজে দেবে এই ডিভাইস।

ক্ষুদ্রাকৃতির এ ডিভাইস ব্লুটুথের মাধ্যমে ফোনের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে সেটির সঙ্গে রাখা যে কোনো কিছুর অবস্থান বের করার কাজটি করে থাকে।

আপনি চাইলে আপনার ওয়ালেট বা চাবির রিং এ যুক্ত করতে পারেন ক্ষুদ্রাকৃতির এ ডিভাইস। বাংলাদেশে এ জন্য আপনাকে গুনতে হবে ৭০০ থেকে ১০০০ টাকা।

এক নজরে নাট ব্লুটুথ ট্র্যাকার

-ব্লুটুথ ৪.০ কানেকশন

-৩ মাস পর্যন্ত ব্যাটারি লাইফ, কয়েন-সেল লিথিয়াম ব্যাটারি

-ফোন থেকে হারানো ডিভাইসে অ্যালার্ম বাজানোর সুবিধা

-ডিভাইস থেকে হারানো ফোনে অ্যালার্ম বাজানোর সুবিধা

-ডিভাইস রেঞ্জের বাইরে চলে গেলে তাৎক্ষণিকভাবে সেটি ব্যবহারকারীকে জানানোর সুবিধা

গঠন

নাট ট্র্যাকার২ ডিভাইসটির গঠন খুবই ছোট আকৃতির। চতুষ্কোন প্লাস্টিকের বক্সের এ যন্ত্রে রয়েছে নাট লোগো ও একটি বাটন। পুরোটি প্লাস্টিকে তৈরি হলেও, খুবই উন্নতমানের প্লাস্টিক ব্যবহার করায় সহজেই নষ্ট হয়ে যাবার সম্ভাবনা নেই।

ডিভাইসটি খুলে ফেলার পর দেখা যাবে একটি কয়েন-সেল ব্যাটারি লাগানোর স্থান রয়েছে। নাটের দাবি অনুযায়ী একটি ব্যাটারিতে ডিভাইসটি প্রায় তিন মাস পর্যন্ত কাজ করতে সক্ষম।

ডিভাইসের উপরের বাটনটি দেখে সেটি পাওয়ার বাটন মনে হলেও, ডিভা‍ইসটিতে আসলে কোনও পাওয়ার বাটন নেই। খুবই কম শক্তি ব্যবহার করায় এটি সবসময়ই চালু থাকে। বাটনটির মূল কাজ হচ্ছে অ্যালার্ম বন্ধ করা ও ফোনে অ্যালার্ম বাজানো।

ব্যবহারের নিয়ম

নাট ডিভাইসটি ব্যবহার করতে হলে প্রথমেই ফোনে সেটির অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করে নিতে হবে। ডাউনলোড হয়ে যাবার পর সেটির মাধ্যমে ডিভাইসটি পেয়ার করে নেবার পর আর কোনও কাজ নেই।

এবার নাটটি যে জিনিস খুঁজে বের করার জন্য প্রয়োজন সেটির সঙ্গে সংযুক্ত করে দিলেই হবে। হারানো জিনিসটি খুঁজে পেতে ফোনের অ্যাপ থেকে অ্যালার্ম বাজালেই ডিভাইসটি বাজতে শুরু করবে – এরপর শব্দ শুনে তা বের করে নেয়া যাবে সহজেই।

এ ছাড়া ডিভাইসটি একটি নির্দিষ্ট দূরত্বে চলে যাওয়ার সাথে সাথে ফোনে অ্যালার্ম বাজতে শুরু করবে ও শেষ কোথায় সেটি দেখা গিয়েছিল সেটির তথ্য জানাবে।

এমনকি অনান্য নাট ব্যবহারকারীদের মাঝে তথ্য ছড়িয়ে দেয়ার অপশন দেওয়া যাবে, যাতে অন্য কেউ খুঁজে পেলে যোগাযোগ করতে পারে।

শুধু ট্র্যাকারটি হারিয়ে গেলে ফোন থেকে খুঁজে পাওয়াই নয়, ফোন হারিয়ে গেলে ট্র্যাকারের বাটনটি চেপে ধরে ফোনে অ্যালার্ম বাজিয়ে সেটিও বের করা যাবে।

ট্র্যাকারটির মূল সমস্যা বলা যেতে পারে ব্যাটারিটি রিচার্জেবল নয়। ফলে সেটি কিছু মাস পর পর বদল করতে হবে। এ ছাড়া ট্র্যাকারটি পানি-নিরোধক নয়। এ কারণে সেটি বাইরে বৃ্ষ্টির মাঝে ব্যবহার করার মত জিনিসের সাথে চালানো যাবে না। তবে দাম অনুসারে এ টুকু সমস্যা মেনে নেয়া যায়।

টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ