ভৈরবে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ অর্ধশতাধিক আহত
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ভৈরবে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ অর্ধশতাধিক আহত

ভৈরবে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক। এ সময় ভাংচুর ও লুটপাট করা হয় উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২০টিরও বেশি বাড়ি-ঘরে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের কিপিংবাড়ি ও নূরার বাড়ির লোকজনের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পরে আহতদের উদ্ধার করে ভৈরব ও কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে গুরুতর আহত পাঁচজনকে ঢাকা ও বাজিতপুরের ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান।

পুলিশ ও এলাকাবাসীরা জানায়, সাদেকপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় কিপিংবাড়ির নেতা ফজলুল হক মাস্টার এবং নূরারবাড়ির নেতা মুসলিম মিয়ার বংশের লোকজনের মাঝে পূর্বশত্রুতা ও গ্রামের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে আজ সকাল ৭টার দিকে উভয় পক্ষের কয়েকশ লোক দেশিয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। পরে আত্মীয়তার সূত্র ধরে স্থানীয় জুলারবাড়ি, হাজীবাড়ি ও গাজীবাড়ির লোকজন নূরারবাড়ির লোকজনের সঙ্গে যোগ দিলে এলাকা রণক্ষেত্রে রূপ নেয়।

এর আগে বিবদমান এই দুই বংশের লোকজনের মধ্যে গত বছরের ৪ ও ৫ নভেম্বরের সংঘর্ষে কিপিং বাড়ির অহিদ মিয়া নামের এক ব্যক্তি নিহত হন। আহত হন আরও শতাধিক মানুষ। ভাংচুর ও লুটপাট করা হয় ২৫ থেকে ৩০টি বাড়ি-ঘরে।

ওই ঘটনায় নিহত অহিদ মিয়ার ছোট ভাই দুলাল মিয়া বাদী হয়ে নূরার বাড়ির দলনেতা মুসলিম মিয়াকে প্রধান আসামী করে ৩৯জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন। পরে গ্রেপ্তার আতংকে নূরারবাড়ির লোকজন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। এই সুযোগে কিপিং বাড়ির লোকজন নূরার বাড়ির লোকজনের বাড়ি-ঘরে দফায় দফায় ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালায় বলে অভিযোগ করেন নূরার বাড়ির লোকজন।

পরে আদালতের জামিন এবং স্থানীয় মুরুব্বিদের সমন্বয়ে গঠিত শান্তি কমিটির মধ্যস্থতায় নূরার বাড়ির লোকজন নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন। কিন্তু গত শনিবার দুপুরে তারা ফের সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এরই  জেরে আজও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয়পক্ষ।

মোস্তাফিজ/এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ