দাবি বাস্তবায়ন হলে গরুর মাংস ৩০০ টাকা; খাসি ৫০০ টাকা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

দাবি বাস্তবায়ন হলে গরুর মাংস ৩০০ টাকা; খাসি ৫০০ টাকা

গরু হাটের ইজারা বাতিলসহ বিভিন্ন দাবিতে রাজধানীতে মাংস ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট চলছে। দাবি না মানলে এ ধর্মঘট অনির্দিষ্টকাল চলবে। তবে আজ শুক্রবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রাজধানীর মাংস ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা বলেন, দাবি মেনে নিলে এবং সেগুলোর বাস্তবায়ন করা হলে প্রতি কেজি গরুর মাংসের দাম সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা এবং খাসির মাংসের দাম সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা রাখা হবে।

Meat Business

সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ঢাকার মাংস ব্যবসায়ীদের একাংশ।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব রবিউল আলম বলেন, গাবতলী হাটের ইজারাদার, হুন্ডি ব্যবসায়ী, ট্যানারি শিল্পের মালিকরা আমাদের কাছ থেকে বেশি টাকা আদায় করছে। দেশের সাধারণ মানুষকে এর মাসুল দিতে হচ্ছে। এখন ভোক্তাদের থেকে অতিরিক্ত দাম নিয়ে সেই অর্থ ইজারাদার, হুন্ডি ব্যবসায়ী, ট্যানারি শিল্পের মালিকদের দিতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা যে দাবি বাস্তবায়নের জন্য ধর্মঘট করছি; সেগুলো বাস্তবায়ন করলে প্রতি কেজি গুরুর মাংসের দাম হবে ৩০০ টাকা এবং খাসির মাংসের দাম হবে ৫০০ টাকা।

রবিউল আলম অভিযোগ করেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ, আদালতের আদেশ, সিটি কর্পোরেশনের শর্ত কোনো কিছুর তোয়াক্কা করে না গাবতলী গরুর হাটের ইজারাদাররা। মাংস ব্যবসায়ীদের ভয়-ভীতি দেখিয়ে বিচারের নামে চাঁদাবাজি করছে ইজারাদারদের নিযুক্ত বাহিনি। রাত ১২টার আগে হাট থেকে গরু বের হতে দিচ্ছে না তারা।

তিনি আরও বলেন, ট্যানারি শিল্পের মালিকদের দুই ভাগে ভাগ করতে হবে। সফল ব্যবসায়ীদেরকে সহযোগিতা ও ব্যর্থ শিল্প মালিকদের শিল্প বন্ধ করে দিতে হবে। বৈধ পথে গরু আমদানি এবং ভারতে টাকা পাঠানোর ব্যবস্থা করতে হবে।

বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব বলেন, আমাদের এসব দাবি মেনে নিয়ে বাস্তবায়ন করলে আমরা ধর্মঘট থেকে সরে আসবো। অন্যথায় দেশের সব মাংসের দোকান বন্ধ করে দিয়ে সারাদেশে ধর্মঘট পালন করা হবে।

মাংস ব্যবসায়ীদের অন্যান্য দাবিগুলো হলো- গাবতলী গরু হাটের ইজারা বাতিল করতে হবে, হুন্ডি ব্যবসায়ী কালা মাইজাকে বিচারের আওতায় আনা, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তাকে জাবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি গোলাম মুর্তুজা মন্টু, সদস্য শামিম আহম্মেদ, ফরিদ আহম্মেদ, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

অর্থসূচক/মুন্নাফ/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ