‘অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন শিগগিরই’

Avijit-roy
অভিজিৎ রায়-ফাইল ছবি

বিজ্ঞান লেখক ও মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন শিগগিরই আদালতে জমা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি বলেছেন প্রতিবেদন তৈরির কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

মঙ্গলবার বাংলা একাডেমিতে অমর একুশে গ্রন্থমেলার নিরাপত্তা প্রস্তুতি নিয়ে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, তদন্ত শেষ পর্যায়ে। আমরা শিগগিরই আদালতে প্রতিবেদন জমা দেব।

Avijit-roy
অভিজিৎ রায়-ফাইল ছবি

আছাদুজ্জামান বলেন, হত্যাকাণ্ডে জড়িত সবাইকে চিহ্নিত ও শনাক্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন আটজনকে গ্রেপ্তার করেছি, মূল আসামি মুকুল রানা খিলগাঁওয়ের মেরাদিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। বাকিদেরও খুব শিগগিরই গ্রেপ্তার করা যাবে বলে আশা করছি।

উল্লেখ, দুই বছর আগে একুশে বইমেলা চলাকালেই ঢাকা মেলা থেকে মাত্র কয়েকশ গজ দূরে ঢাকা বিশ্ববিদ‌্যালয়ের টিএসসির কাছে ফুটপাতে কুপিয়ে হত‌্যা করা হয় অভিজিৎ রায়কে।

অধ্যাপক অজয় রায়ের ছেলে মুক্তমনা ব্লগসাইট পরিচালনাকারী অভিজিৎ থাকতেন যুক্তরাষ্ট্রে। লেখালেখির কারণে জঙ্গিদের হুমকিতে থাকার মধ্যেও গত বছর বইমেলার সময় স্ত্রীকে নিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলেন তিনি।

অভিজিতের বাবা ওই ঘটনার পর শাহবাগ থানায় যে মামলা করেছিলেন, গত দুই বছরে তার প্রতিবেদন জমা দিতে ১৫ বার সময় বাড়িয়েছে তদন্ত সংস্থা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ‘নিশ্ছিদ্র নজরদারি’ নিশ্চিত করতে পুলিশের এসবি, ডিবি, এবং কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলেও পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জানিয়েছেন।

ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, ধর্মীয় উস্কানিমূলক বই যেন মেলায় না আসে সেজন্য এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরাও মুক্তচিন্তার বাইরে নই। তবে কোনো লেখনীতে সাম্প্রদায়িকতা উস্কে দেওয়া হলে বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী তা অপরাধ।

মেলায় দর্শক-প্রকাশকদের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

টি