কুলিয়ারচরে বিশ্বের বৃহত্তম বিজ্ঞান ক্লাস!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

কুলিয়ারচরে বিশ্বের বৃহত্তম বিজ্ঞান ক্লাস!

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে ৩ হাজার ২০০ শিক্ষার্থী নিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞান ও আইসিটি বিষয়ক ব্যবহারিক ক্লাস হয়েছে। দেশবরেণ্য লেখক, সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড.মুহম্মদ জাফর ইকবালের নেতৃত্বে ১২০ জন শিক্ষক এই ক্লাস পরিচালনা করেন।

এই বৃহৎ ব্যবহারিক ক্লাসের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়াকে পেছনে ফেলে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞান ও আইসিটি বিষয়ক ব্যবহারিক ক্লাস নেওয়ার মধ্য দিয়ে এ রেকর্ড হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কুলিয়ারচরে সবচেয়ে বড় বিজ্ঞান ক্লাস হয়!

কুলিয়ারচরে সবচেয়ে বড় বিজ্ঞান ক্লাস হয়!

এর আগে এই রেকর্ড ছিল অষ্ট্রেলিয়ার। ২০১৬ সালের ১৬ আগস্ট অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে দুই হাজার ৯০০ শিক্ষার্থী নিয়ে বিজ্ঞান ও আইসিটি বিষয়ক ব্যবহারিক ক্লাস হয়। যা এ যাবৎকালের বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞান ক্লাস হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, বিজ্ঞান বিষয়ক ক্লাসটিতে ১৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পাঁচটি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের তিন হাজার ২০০ ছাত্রছাত্রী অংশ নেয়। অনুষ্ঠানে ২১টি এলইডি মনিটর সিস্টেমের মাধ্যমে ক্লাস নেওয়া হয়। প্রথম পর্বে ব্যবহারিক ক্লাস এবং দ্বিতীয় পর্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পুরো অনুষ্ঠানটি হয় স্থানীয় বেগম নুরুন্নাহার বালিকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে। দুপুর ১২টায় শুরু হওয়া ওই ক্লাস চলে বিকেল নাগাদ।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলি যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রাণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য নাজমুল হাসান পাপন।

অনুষ্ঠান শেষে অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, গিনেস কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ বিষয়ে ইতোমধ্যে যোগাযোগ করা হয়েছে। অনুষ্ঠানটির ভিডিও গিনেস কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। ভিডিও দেখে তারা গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। আশা করি তা সফল হবে। এ সময় তিনি শিক্ষাখাতে সরকারের কাছে আরো অর্থ বাড়ানোর দাবি করেন।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, দেশের শিক্ষা ও শিক্ষাখাতের উন্নয়নে বর্তমান সরকার বহুমুখী প্রকল্প গ্রহণ করেছে। আগামীতে এখাতের কল্যাণে আরো কর্মসূচী গ্রহণ করবে সরকার।

সাংসদ নাজমুল হাসান এমন একটি আয়োজনের জন্য স্থানীয় প্রশাসনের প্রসংশা করেন।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুলিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ড.ঊর্মি বিনতে সালাম। তিনি তার বক্তব্যে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, এ আয়োজনে বাংলাদেশ শুধু নয়, কুলিয়ারচরও বিশ্ব রেকর্ডের অংশ হলো।

এই বিভাগের আরো সংবাদ