অনুমোদন পেল আরও ৪ বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চল
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

অনুমোদন পেল আরও ৪ বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চল

বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) পরিচালনা পরিষদ ৪টি বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চলের অনুমোদন দিয়েছে। অনুমোদন পাওয়া বেসরকারী অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো হচ্ছে- মাদারীপুর, ফরিদপুর, নোয়াখালি ও কিশোরগঞ্জ।

প্রধানমন্ত্রী ও বেজার পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পরিষদের ৫ম সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়।

pm_beza_bssu

আজ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চলের (বেজা) পঞ্চম বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি বাসস

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী দেশের সার্বিক উন্নয়নে অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো প্রতিষ্ঠায় আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করতে কর্মকর্তাদের আহবান জানান।

তিনি বলেন, উন্নয়নের জন্য বেসরকারি খাতকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সুযোগ-সুবিধা নিয়ে বেসরকারি বিনিয়োগকারীরা কৃষি জমিতে যথেচ্ছা শিল্প স্থাপন করছে।

তিনি বলেন,অপরিকল্পিত শিল্পায়ন থেকে কৃষি জমি রক্ষা করতে শিল্প স্থাপনা একটি নির্ধারিত অঞ্চলে স্থাপনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এছাড়া অপরিকল্পিত শিল্প-প্রতিষ্ঠান পরিবেশেরও ক্ষতি করছে। এ জন্য এখন থেকে বিনিয়োগকারীদের নির্ধারিত অঞ্চলেই স্থাপন করতে হবে। এসব অঞ্চলে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারর হোসেন, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো: মুজিবুল হক চুন্ন, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির এবং বেসরকারি শিল্পের মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ও সচিবগণ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

সভায় নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বেজার কর্মকান্ড ও পরিকল্পনা উপস্থাপন করেন।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফকালে বলেন, অনুমোদিত বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো মাদারীপুর, ফরিদপুর, নোয়াখালী ও কিশোরগঞ্জে গড়ে তোলা হবে।

বৈঠকে বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে দেশী ও বিদেশী বিনিয়োগকালীদের প্রয়োজনীয় সব ধরনের সেবার ব্যবস্থা করতে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল আইন প্রণয়নের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়।

তিনি বলেন, বৈঠকে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনের (অর্থনৈতিক অঞ্চলের কল্যাণ তহবিল গঠনের ও পরিচালনা) খসড়া নীতি, শুল্ক ব্যবস্থা ও বর্তমান বৈশ্বিক বিনিয়োগ প্রেক্ষাপট বিবেচনায় বিনিয়োগকারীদের যথাযথ মূল্যে জমি প্রদানের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হয়।

বাসস

এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ