২০১৬ সালে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছে ১১%
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

২০১৬ সালে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছে ১১%

সদ্য শেষ হওয়া ২০১৬ সালে বিদেশে চাকুরিরত প্রবাসীদের পাঠানো অর্থ বা রেমিট্যান্সের প্রবাহ কমেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যে দেখা গেছে, আলোচ্য বছরে আগের বছরের (২০১৫) তুলনায় রেমিট্যান্সের প্রবাহ কমেছে ১৭১ কোটি ডলার বা ১১ দশমিক ১৫ শতাংশ।

গতকাল রোববার প্রকাশ হওয়া বাংলাদেশ ব্যাংকের ওই তথ্যে দেখা গেছে ২০১৬ সালে মোট রেমিটেন্স এসেছে ১৩৬১ কোটি মার্কিন ডলার। অথচ ২০১৫ সালে এর পরিমাণ ছিলো ১৫৩২ কোটি ডলার।remittance-dollar_58015

তবে আসছে ২০১৭ সালে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থের প্রবাহ বাড়াতে কেন্ত্রীয় ব্যাংক ও সরকার ইতোমধ্যে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংকের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

তিনি জানান, এই লক্ষ্যে কাজ শুরু হয়েছে। বিদেশে বিভিন্ন এক্সচেঞ্জ হাউজের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা হয়েছে। সম্প্রতি বিদেশে বাংলাদেশি এক্সচেঞ্জ হাউজের জন্য জামানত ফি কমানো হয়েছে।

তথ্যে দেখা গেছে, কেবল ডিসেম্বর মাসে রেমিট্যান্স এসেছে ৯৫ কোটি ৮৭ লাখ ডলার। আর তার আগের মাস নভেম্বরে এসেছে ৯৫ কোটি ১৩ লাখ ডলার।

শরণার্থী ও অভিবাসীদের নিয়ে কাজ করা সংগঠন রামরুর তথ্য মতে, ২০১৬ সালে মোট সাড়ে ৭ লাখ বাংলাদেশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গিয়েছে। এই সংখ্যা ২০১৫ সালের তুলনায় ৩৫ শতাংশ বেশি। গত বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালে এই সংখ্যা ছিলো সাড়ে ৫ লাখ।

এই বিষয়ে রামরুর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক তাসনীম সিদ্দিকি একটি ইংরেজি দৈনিককে বলেন, মূলত বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমে যাওয়ায় তেল নির্ভর মধ্যপ্রাচের অর্থনীতি বেশ ধাক্কা খেয়েছে। আর তার প্রভাব পড়েছে আমাদের প্রবাসী আয়ে। কারণ বিদেশে কাজ করা বাংলাদেশিদের ৮০ শতাংশই ওই এলাকায় থাকে।

এ বিষয়ে ইংরেজি ওই দৈনিকটিকে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মাদ আব্দুল মান্নান জানান, রেমিট্যান্সের প্রবাহ কমে যাওয়া রোধ করতে তার ব্যাংক ইতোমধ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে।

তিনি জানান, ইসলামী ব্যাংকের সকল শাখায় প্রবাসীদের পাঠানো টাকা দ্রুত এ সহজে দেওয়ার জন্য সেবার মান আরও বাড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রেমিট্যান্সের প্রবাহ বাড়াতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে তারা যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহী বলেও জানান তিনি।

মোহাম্মাদ আব্দুল মান্নান আশা প্রকাশ করেন ২০১৭ সালে রেমিট্যান্স প্রবাহ আবার বাড়বে।

টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ