আদার ঝাঁজের গুণ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

আদার ঝাঁজের গুণ

আদা একটি উদ্ভিদ মূল যা মানুষের খাদ্যোপদান হিসাবে ব্যবহৃত হয়। মশলা জাতীয় ফসলের মধ্যে আদা অন্যতম। শুধু খাদ্যশিল্পে, পানীয় বা আচার তৈরিতে নয়, ঔষধ ও সুগন্ধি তৈরীতেও ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া এটি একটি ভেষজ ঔষধ। মুখের রুচি বাড়াতে ও বদহজম রোধে আদা শুকিয়ে চিবিয়ে খাওয়ার প্রচলন অনেক আগে থেকেই।

আদা মসলার পাশাপাশি ভেষজ চিকিৎসাতেও ব্যবহার হয়।

আদা মসলার পাশাপাশি ভেষজ চিকিৎসাতেও ব্যবহার হয়।

আদার উপকারিতাঃ

  •  খেতে একেবারেই ইচ্ছে হচ্ছে না? অসুস্থ বোধ করছেন খাবার দেখলেই? কোনো সমস্যাই নয়। খাওয়ার আগে ১ চা চামচ তাজা আদা কুচি খেয়ে নিন।
    মুখের রুচি ফিরে আসবে।
  •  যাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা রয়েছে তারা প্রতিদিন ১ কোষ পরিমান আদা সামান্য লবন দিয়ে খেলে ৭ দিনেই এই সমস্যা দূর হয়ে যাবে।
  •  প্রতিদিন মাত্র ১ ইঞ্চি পরিমানের আদা কুচি খাওয়া অভ্যাস সাইনাসের সমস্যা প্রতিরোধে সহায়তা করে।
  • হাতে পায়ের সন্ধিতে ব্যথা হলে সাহায্য নিতে পারেন আদার তেলের। খানিকটা অলিভ অয়েলে আদা ছেঁচে নিয়ে ফুটিয়ে নিন ৫ মিনিট। ঠাণ্ডা হলে ছেঁকে এই তেল দিয়ে ম্যাসাজ করুন হাতে পায়ের জয়েন্টে। আদার অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান ব্যথা দূর করে দেবে।

    বদ হজম ক্ষুধামন্দায় খেতে পারেন আদা কিংবা আদার গুঁড়া।

    বদ হজম ক্ষুধামন্দায় খেতে পারেন আদা কিংবা আদার গুঁড়া।

  • বমি বমি ভাব হচ্ছে? কিংবা মাথা ঘুরানো? একটুখানি আদা স্লাইস করে লবণ দিয়ে চিবিয়ে খেয়ে নিন। দেখবেন বমি ভাব একেবারেই কেটে গিয়েছে।
  • হজমে সমস্যার কারণে পেটে ব্যথা হলে আদা কুচি খেয়ে নিন। আদা পেটে গ্যাসের সমস্যা থেকেও মুক্তি দিতে বেশ কার্যকরী।
  • খাবারের পুষ্টি দেহে সঠিকভাবে শোষণ করার ক্ষমতা বাড়ায় আদা। তাই প্রতিদিন খুব সামান্য পরিমাণে হলেও আদা খাওয়া অভ্যাস করা উচিত সকলের।
  • বুকে সর্দি কফ জমে গিয়েছে? নিঃশ্বাস নিতে সমস্যা হচ্ছে? ২ কাপ পানিতে আদা কুচি দিয়ে ফুটিয়ে নিন। পানি যখন অর্ধেক হয়ে আসবে জ্বাল হয়ে তখন ছেঁকে নামিয়ে ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে পান করে ফেলুন। বেশ আরাম পাবেন। সর্দি কফের সমস্যা না যাওয়া পর্যন্ত এই আদা চা পান করে চলুন।
  • ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে যাচ্ছে ? প্রতিদিন সামান্য আদা কাঁচা চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। আদা অ্যান্টিএইজিং উপাদান ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা দেহের টক্সিন দূর করে এবং দেহে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে ত্বকে বয়সের ছাপ প্রতিরোধ করে।

তাবাচ্ছুম/কাঙাল মিঠুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ