ব্যাংকের কাঁধে চড়ে মনস্তাত্ত্বিক বাধা পার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ব্যাংকের কাঁধে চড়ে মনস্তাত্ত্বিক বাধা পার

সাম্প্রতিক সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে পাঁচ হাজার পয়েন্ট অতিক্রম করে গেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের বৃহত্তম সূচক ডিএসইএক্স। মঙ্গলবার দিন শেষে এই সূচকের অবস্থান দাঁড়িয়েছে ৫০১৬ দশমিক ৭৪ পয়েন্ট। এটি গত দুই বছরের মধ্যে সূচকটির সর্বোচ্চ অবস্থান। ডিএসইএক্সের এই উল্লম্ফনে বড় ভূমিকা রেখেছে ব্যাংকিং খাত।

বেশ কিছুদিন ধরে পুঁজিবাজারে বেশ গতিশীলতা দেখা বিরাজ করছে। আর এই গতিশীলতাকে সামনে রেখেই সংশ্লিষ্টদের মধ্যে আলোচনা ছিল ডিএসইএক্স পাঁচ হাজার পয়েন্ট অতিক্রম করবে কি-না, করলে কবে নাগাদ করবে। সোমবার দিন শেষে আলোচিত সূচকটি পাঁচ হাজার পয়েন্ট থেকে সাড়ে ছয় পয়েন্ট নিচে এসে অবস্থান নেয়। অনেক বিনিয়োগকারী ভেবেছিলেন পাঁচ হাজার পয়েন্ট অতিক্রম করার আগে বাজারে বেশ কিছুটা মূল্য সংশোধন হতে পারে। মনস্তাত্ত্বিক এই বাধা পার হতে বেশ কয়েকদিন সময় লাগতে পারে, কিছুদিন সূচক পাঁচ হাজার পয়েন্টের আশপাশে ঘোরাফেরা করতে পারে এমনটি ধারণা ছিল অনেকের। কিন্তু মঙ্গলবার লেনদেনের কিছুক্ষণের মধ্যেই এসব ধারণাকে ভুল প্রমাণ করে সূচক এক লাফে মনস্তাত্ত্বিক বাধা পার হয়ে যায়। লেনদেন শুরুর ২৩ মিনিটে ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৪৭ দশমিক পয়েন্ট বেড়ে ৫০৪০.৯৩ পয়েন্টে উঠে আসে। এরপর উঠা-নামার মধ্য দিয়ে দিনশেষে তা ৫০১৬ দশমিক ৭৪ পয়েন্টে এসে স্থির হয়।

দিনটি ছিল ব্যাংকের

পুঁজিবাজারে মঙ্গলবার দিনটি ছিল ব্যাংকের। এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তালিকাভুক্ত ৩০ ব্যাংকের মধ্যে ২৮টি বা ৯৩ শতাংশের শেয়ারের দর বৃদ্ধি পায়। অপরিবর্তিত থাকে দুইটির শেয়ারের দর।

এদিন ব্যাংকিং খাতের শেয়ারগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ ৭.৬ শতাংশ থেকে সর্বনিম্ন ০.৪ শতাংশ পর্যন্ত দর বৃদ্ধি পায়।

মঙ্গলবার ডিএসইতে বিভিন্ন ব্যাংকের ১০ কোটি ৭৬ লাখ শেয়ার কেনা-বেচা হয়। এই খাতে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ১৬১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। আগের দিনের চেয়ে লেনদেন বাড়ে ৮৫ শতাংশ।

sectoral-trade

মঙ্গলবার লেনদেনে বিভিন্ন খাতের অবস্থান-গ্রাফিকস: লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ

সোমবার ডিএসইতে মোট লেনদেনে ব্যাংকিং খাতের অংশ ছিল ৮ শতাংশ। মঙ্গলবার তা বেড়ে ১৮ শতাংশে উন্নীত হয়।

৪৮ হাজার কোটি টাকার বাজারমূলধন নিয়ে ব্যাংকিং খাত সামগ্রিক বাজারমূলধনের শীর্ষে অবস্থান করছে। মঙ্গলবার ব্যাংকিং খাতের বাজারমূলধন বাড়ে ১.৭০ শতাংশ।

বিশ্লেষকদের মতে দুটি কারণে মঙ্গলবার ব্যাংকিং খাতের শেয়ারের দর এভাবে বেড়ে থাকতে পারে। প্রথমত ব্যাংক ক্লোজিং এর আগে নিজেদের পোর্টফোলিও তথা বিনিয়োগের চিত্র ভালো দেখাতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের একাংশ ব্যাংকের শেয়ারের দর বাড়াতে ভূমিকা রেখে থাকতে পারে। দ্বিতীয়ত ডিএসইএক্স সূচককে পাঁজ হাজার পয়েন্টের মনস্তাত্ত্বিক বাধা পার করানোর উদ্দেশ্য নিয়েও ব্যাংকিং খাতের শেয়ারের দর বাড়ানোর চেষ্টা করা হয়ে থাকতে পারে। অবশ্য তাদের (বিশ্লেষক) মতে এমনিতেই ব্যাংকিং খাতে মূল্য বৃদ্ধির কিছু অনুকূল পরিবেশ তৈরি হয়ে ছিল। সম্প্রতি অন্যান্য খাতে শেয়ারের দাম যতটা বেড়েছে, ব্যাংকিং খাতে ততটা বাড়েনি। তাছাড়া এই খাতের গড় মূল্য-আয় অনুপাতও (পিই রেশিও) এখন পর্যন্ত অন্যান্য খাতের চেয়ে কম।

এই বিভাগের আরো সংবাদ