মেঘনায় বরযাত্রীবাহী ট্রলারে ডাকাতি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ঢাকা

মেঘনায় বরযাত্রীবাহী ট্রলারে ডাকাতি

শুক্রবার রাতে কিশোরগঞ্জের মেঘনা নদীতে বরযাত্রীবাহী ট্রলারে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতরা দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে যাত্রীদের কাছ থেকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকারসহ প্রায় দুই লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়েছে। এ সময় ডাকাতদের এলোপাথারি মারধরে কমপক্ষে পাঁচজন আহত হন। ভৈরব নৌপুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো: আনিসুর রহমান জানিয়েছেন, মেঘনা নদীর বাজিতপুর-সরাইল মোহনার কাছে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে বলে তিনিও শুনেছেন। সন্ধ্যার পর নদীর ওইপথে নৌ পুলিশের কোনো টহল টিম কাজ করে না বলে জানিয়ে তিনি আরো বলেন-বরযাত্রী যাবে এমনটি জানা থাকলে তারা প্রহরার ব্যবস্থা করতেন।

ডাকাতির কবলে পড়া বরযাত্রীদের সূত্রে জানাযায়, পূর্বঅষ্টগ্রাম এলাকার মৃত শহীদুল হকের ছেলে আসাদুল হক আতিক এবং পাকুন্দিয়া পীরবাড়ির মৃত বুরহান উদ্দিনের মেয়ে মুন্নি আক্তারের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয় কিশোরগঞ্জ সদরের উজানভাটি কমিউনিটি সেন্টারে। সেখান থেকে সড়কপথে বর-কনেসহ অষ্টগ্রাম যাবার উদ্দেশে কুলিয়ারচর লঞ্চ টার্মিনালে আসেন। পরে একটি স্পীডবোডে বর-কনেকে উঠিয়ে দিয়ে তারা নজরুল মাঝির ট্রলারে করে ৩০/৩৫জন লোক অষ্টগ্রামের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন।

রাত ৭টার দিকে বাজিতপুর-সরাইল থানার মোহনার কাছে সুলায়মানপুর-রাজাপুরের মাঝামাঝি পৌঁছলে অপর একটি ট্রলারে করে ৭/৮জনের একটি ডাকাতদল তাদের ট্রলারে হানা দেয়। এ সময় ডাকাতরা দেশীয় অস্ত্রের মুখে বরযাত্রীদের জিম্মি করে স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মোবাইলসেটসহ প্রায় দুই লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়ে সটকে পড়ে। এ সময় ডাকাতদের এলোপাথারি আঘাতে বরের ছোটভাই রুনেল (২৮)সহ লায়েছ মিয়া (৪২), খাইরুল (৩৬), সহিদ মিয়া (৩০) ও সবু মিয়া (৫০) নামে পাঁচজন আহত হন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ