রাজনৈতিক দলগুলোকে সমঝোতায় আসার আহ্বান: জনতার ফোরাম

দেশের বর্তমান রাজনৈতিক সংকটময় পরিস্থিতিতে ১৮ দলীয় জোট আর ১৪ দলীয় মহাজোটসহ সকল রাজনৈতিক দলকে সমঝোতায় আসার আহ্বান জানিয়েছে নিরপেক্ষ জনতার ফোরাম নামের একটি সংগঠন। শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ছোট মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানান সংগঠনটির নেতারা।

বক্তারা বলেন, আমরা এখন হত্যা, সন্ত্রাস বোমাবাজীর কাছে জিম্মি। গণতন্ত্র পনরুদ্ধার এবং গণতন্ত্র রক্ষার নামে যে নৈরাজ্য চলছে তাতে আমরা মর্মাহত, আতংকিত এবং লজ্জিত। যদি ভবিষ্যতে এই দুই দল অবস্থানে অনড় থাকে তবে দেশ অনিশ্চয়তার দিক চলে যাবে। তাই প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেত্রীর কাছে অনুরোধ আমাদেরর রক্ষা করুন।

বিদেশিরা আমাদেরকে সমঝোতার আহ্বান জানাচ্ছে। এতে কি আমাদের রাজনৈতিক দৈন্যতা প্রকাশ পায় না রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে এমন প্রশ্ন করে তারা বলেন, দেশে এই নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও আমাদের কলঙ্কিত করছে। যার ফলে ভিনদেশিরা আমাদের দেশে প্রতিনিধিত্ব করতে আসে।

এ সময় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের সম্মান ক লংকিত করার অধিকার কারও নেই উল্লেখ করে দ্রুত সংলাপের মাধ্যমে সমঝোতা করার আহ্বান জানান তারা।

বক্তারা আরও বলেন, নির্বাচন ও সংবিধান ইঞ্জিনিয়ারিং করে ১৬ কোটি বাংলাদেশিকে বোকা বানানোর চেষ্টা সব দলই করেছে।

তারা বলেন,  আজ যারা তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাচ্ছেন তারাও যে ভবিষ্যতে সরকারে গেলে এর বিরোধীতা করবেন না এবং যারা তত্ত্বাবধাক বাতিল করেছেন তারাও যে বিরোধীদলে গেলে তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাইবেন না এর নিশ্চিয়তা কোথায়? তাই বড় দুই দলের কাছে অনুরোধ সংলাপে বসে একটি নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দিয়ে দেশকে বাঁচান, গণতন্ত্র রক্ষা করুন।

সংগঠনের আহবায়ক কমিটির সভাপতি মেজর (অব) মো: মাছউদুল হাসানের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সদস্য স্কোয়ড্রন লিডার (অব) ইঞ্জিনিয়ার ফোরকান আলী, খাজা কামেল, ইঞ্জিনিয়ার রুহুল আমিন, ইঞ্জিনিয়ার মাহবুবুর রহমান, সফিকুল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ।

জেইউ/এএস