৮ বছরে বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে উন্নতি করেছে বাংলাদেশ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

৮ বছরে বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে উন্নতি করেছে বাংলাদেশ

২০০৮ সালের পর থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ক্ষুধা ও অপুষ্টির হার কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে ধারাবাহিক উন্নতি করেছে বাংলাদেশ। ‘বিশ্ব ক্ষুধা সূচক’ এর তথ্যে দেখা গেছে আলোচ্য সময়ে সূচকের পয়েন্টে ইতিবাচক পরিবর্তন হয়েছে বাংলাদেশের।

ইন্টারন্যাশনাল ফুড পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের প্রকাশিত ২০১৬ সালের ‘বিশ্ব ক্ষুধা সূচক’ এর তথ্যে দেখা গেছে ২০০৮ সালের প্রতিবেদনে যেখানে বাংলাদের স্কোর ছিল ৩২ দশমিক ৪ সেখানে এবার তা কমে ২৭ দশমিক ১ হয়েছে।

তবে সার্বিকভাবে বিশ্ব বাস্তবতায় এখনও অনেক পেছনে আছে বাংলাদেশ। তালিকার ১১৮টি দেশের মধ‌্যে বাংলাদেশের অবস্থান হয়েছে ৯০তম।


প্রসঙ্গত, ক্ষুধা, অপুষ্টি, কম ওজন, কম উচ্চতা এবং শিশুমৃত‌্যুর হার পরিস্থিতি বিচার করে ১০০ পয়েন্টের এই সূচক তৈরি করে ইন্টারন্যাশনাল ফুড পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট। এই সূচকে যে দেশের স্কোর যত কম, সে দেশের পরিস্থিতি সবচেয়ে ভালো। সংস্থাটি জাতিসংঘের খাদ‌্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) নির্ধারিত ক্ষুধার সংজ্ঞা অনুযায়ী এই সূচক তৈরি করে।

এফএও বলছে, একটি শিশুর প্রতিদিনের গ্রহণ করা খাদ‌্যের পুষ্টিমান গড়ে ১৮০০ কিলোক‌্যালরির কম হলে বিষয়টিকে ক্ষুধা হিসেবে চিহ্নিত করা হবে।

গতসপ্তাহে প্রকাশিত সূচকে দেখা গেছে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ‌্যে বাংলাদেশ এই সূচকে ভারত (৯৭), পাকিস্তান (১০৭) ও আফগানিস্তানের (১১১) চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। তবে পিছিয়ে আছে নেপাল (৭২), মিয়ানমার (৭৫) ও শ্রীলংকার (৮৪) তুলনায়।

সূচকের তথ্য অনুসারে, বাংলাদেশের মোট জনসংখ‌্যার ১৬ দশমিক ৪ শতাংশ অপুষ্টির শিকার; পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের ১৪ দশমিক ৩ শতাংশের উচ্চতার তুলনায় ওজন কম; ওই বয়সী শিশুদের ৩৬ দশমিক ৪ শতাংশ শিশুর ওজন বয়সের তুলনায় কম এবং পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুমৃত‌্যুর হার ৩ দশমিক ৮ শতাংশ।

সূচক অনুসারে যেসব দেশের স্কোর ৫ এর কম তারা ভালো অবস্থানে রয়েছে। ১১৮ দেশের মধ্যে ৫ এর কম স্কোর আছে ১৬টি দেশের। তবে ৩৫ এর বেশি স্কোর থাকা দেশগুলোর খাদ্য নিরাপত্তার বিষয়টি বেশ নাজুক। তালিকায় এমন দেশের সংখ্যা ৭টি। ১১৮ নম্বর অবস্থানে থাকা সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের স্কোর ৪৬ দশমিক ১।

এই বিভাগের আরো সংবাদ