‘২০১৮ সালেই নেপাল-বাংলাদেশ রেলযোগাযোগ প্রক্রিয়া শুরু’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘২০১৮ সালেই নেপাল-বাংলাদেশ রেলযোগাযোগ প্রক্রিয়া শুরু’

আগামী ২০১৮ সালের মধ্যেই নেপালের সঙ্গে সরাসরি রেলযোগাযোগ স্থাপনের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। বাংলাদেশের মংলা পোর্ট থেকে ভারত হয়ে নেপালে পণ্য পরিবহণের সুবিধার্থেই এমন উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানান মন্ত্রী।unnamed-1

আজ রোববার সকালে সচিবালয়ে নেপালের বাণিজ্যমন্ত্রী রোমি গাওচান থাকালির সঙ্গে এক বৈঠক শেষে তোফায়েল আহমেদ এমন কথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, নেপালের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে কথা হয়েছে। আসছে ২০১৮ সালের মধ্যেই দুই দেশের সরাসরি রেল যোগাযোগ স্থাপনের কাজ শুরু হবে।

মন্ত্রী বলেন, নেপালের সঙ্গে সরাসরি রেল যোগাযোগ স্থাপন হলে দুই দেশের মধ্যকার বাণিজ্য সম্পর্ক আরও জোরদার হবে। নেপাল থেকে পণ্য আমদানি যেমন সহজ হবে তেমনি নেপালে রপ্তানিও বাড়বে।

তিনি বলেন, নেপালের সঙ্গে আমাদের বাণিজ্য শুরু হয়েছে ১৯৭৬ সালে। কিন্তু নানা জটিলতার কারণে ওই দেশে বাণিজ্যের পরিমাণ ততটা বৃদ্ধি পায়নি। বাংলাদেশ ভূটান, ভারত, নেপালের মধ্যে (বিবিআইএন) যে কানেকটিভিটি চুক্তি হয়েছে, এটা বাস্তবায়নের পথে। এ চুক্তি বাস্তবায়িত হলে নেপালে সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য সরাসরি বৃদ্ধি পাবে।

বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, নেপাল মংলা বন্দর ব্যবহার করবে। এই মুহুর্তে মংলা বন্দরের উন্নয়নের কাজ চলছে, রেল লাইনের কাজ চলছে। রেল ব্যবহার করে উভয় দেশই পণ্য আমদানি এবং রপ্তানি করতে পারবে।

তিনি বলেন, আমরা নেপালের সঙ্গে জল বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে। এখানে ভারতেও সহযোগিতা নেওয়া হবে। জল বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন হলে ২০২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের আমাদের যে পরিকল্পনা রয়েছে তা বাস্তবায়ন সহজ হবে।

অর্থসূচক/আজম/এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ