২২ মার্চেন্ট ব্যাংকের বিরুদ্ধে 'অ্যাকশনে' যাচ্ছে বিএসইসি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

২২ মার্চেন্ট ব্যাংকের বিরুদ্ধে ‘অ্যাকশনে’ যাচ্ছে বিএসইসি

টানা ২ বছর কোনো প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) না আনতে পারা ২২ মার্চেন্ট ব্যাংকের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে যাচ্ছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এর অংশ হিসেবে প্রথম শো’কজ নোটিশ পাঠানো হবে ওই মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোকে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

bsec

বিএসইসি-লোগো

জানা গেছে, বিএসইসি রুলস পরিপালনের ক্ষেত্রে কমিশন ওই মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোকে আরও সময় দিতে চায়। তবে আইপিও আনার ক্ষেত্রে যদি তাদের আর কোনো পথ না থাকে; তবে কমিশন আরও কার্যকর পদক্ষেপ নেবে।

সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যান্ড পোর্টফোলিও ম্যানেজার) রুলস-১৯৯৬ অনুযায়ী, যে কোম্পানিটি আগামীতে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে যাচ্ছে বা যাবে, ২ বছরের মধ্যে তার আইপিও ইস্যু জমা দিতে হবে।

যেসব মার্চেন্ট ব্যাংকের বিরুদ্ধে চিঠি পাঠানো হয়েছে সেগুলো হলো-অগ্রণী ইক্যুইটি অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, এআইবিএল ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট, অ্যালাইন্স ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, বিডি ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল হোল্ডিংস, বিএলআই ক্যাপিটাল, ব্র্যাক ইপিএল ইনভেস্টমেন্ট, সিটি ব্যাংক ক্যাপিটাল রিসোর্সেস, কসমোপলিটন ফাইন্যান্স, ইবিএল ইনভেস্টমন্টে, ইসি সিকিউরিটিজ,  এক্সিম ইসলামী ইনভেস্টমেন্ট, ফস ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট, ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, যমুনা ব্যাংক ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট, এনবিএল ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট, এনডিবি ক্যাপিটাল, রেস পোর্টফোলিও অ্যান্ড ইস্যু ম্যানেজমেন্ট, রূপালী ইনভেস্টমেন্ট, এসবিএল ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট, ইউনিক্যাপ ইনভেস্টমেন্টস এবং উত্তরা ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রকাশিত তথ্য মতে, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে পুঁজিবাজার থেকে আইপিওর মাধ্যমে অর্থ উত্তোলন কমেছে। এর আগের অর্থবছরের তুলনায় কমেছে ৩৪ দশমিক ৩৩ শতাংশ বা ৪৪৮ কোটি টাকা। আলোচ্য অর্থবছরে আইপিওর মাধ্যমে ১১টি কোম্পানি ৮৫৮ কোটি ৩০ লাখ টাকা উত্তোলন করেছে। যা তার আগের অর্থবছরে ১৬ কোম্পানির অর্থ উত্তোলন ছিলো ১ হাজার ৩০৬ কোটি ৯৭ লাখ টাকা।

চলতি বছরের জুলাই মাসে প্রথমে ২১ মার্চেন্ট ব্যাংকের বিরুদ্ধে এই নোটিশ পাঠানো হয়েছিলো। তবে এই নোটিশে তাদের বক্তব্য ছিল- পুঁজিবাজারের খারাপ অবস্থাই এই আইন ভাঙ্গার মূল কারণ। তাছাড়া পুঁজিবাজারের সব শর্ত মেনে শেয়ারের সঠিক দাম না পাওয়ার ভয়ে নতুন কোম্পানি বাজারে আসতে আগ্রহী হয় না।

অর্থসূচক/মাহমুদ

এই বিভাগের আরো সংবাদ