পূজার বেচা-কেনায় ব্যস্ত শাখারি বাজার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পূজার বেচা-কেনায় ব্যস্ত শাখারি বাজার

সনাতন ধর্মালম্বী হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা আজ শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে। পূজার আগে মা দুর্গাকে মনের মতো সাজাতে কেনাকাটায় ব্যস্ত সনাতন ধর্মালম্বীরা; একইসঙ্গে নিজেদের জন্য পোশাক এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রও কিনছেন তারা। রাজধানী পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী শাখারি বাজারে চলছে শেষ সময়ের কেনাকাটা।

পূজার উপকরণ বিক্রিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্যবসায়ীরা। পিতলের বাসন বিক্রির জন্য বিখ্যাত সেন ব্রাদার্সের কর্ণধার বরুন সেন অর্থসূচককে বলেন, শারদীয় দুর্গাপূজার সময় সবচেয়ে বেশি কেনাবেচা হয় পূজার উপকরণ। পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে বলে এখন ব্যবসা ভালোই হচ্ছে।

তিনি বলেন, এখানে সারা বছরই টুকিটাকি বিক্রি হয়। তবে পূজা উপলক্ষে বিক্রি অনেক বেড়ে যায়। এ সময় সবচেয়ে বেশি পরিমাণে বিক্রি হয় বড় কাসার বাসন।

shakari-bazar

শাখারি বাজারে পূজার সরঞ্জাম কিনছেন এক নারী।

শাখা বিক্রির জন্য বিখ্যাত দোকান দত্ত ভাণ্ডারের কর্ণধার নিলকা চন্দ্র দত্ত বলেন, স্বাধীনতার পর ৪৫ বছরের মধ্যে এ বছর সবচেয়ে আড়ম্বরপূর্ণ পূজা হচ্ছে। বাজারের সার্বিক ব্যবস্থাপনা ভালো থাকায় মানুষ স্বাচ্ছন্দে কেনাকাটা করছেন। তবে লাভ কম হলেও বিক্রি ভালোই হচ্ছে।

তিনি বলেন, গত বছর পূজায় ব্যবসায়ীরা ভালো লাভ করতে পারেননি। সে তুলনায় এবার লাভ বেড়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মা দুর্গার সরঞ্জামাদি বেশি বিক্রি হয়েছিল।

shakari-bazar2

শাখারি বাজারে পূজার সরঞ্জাম কিনতে আসা একজন সাজছেন রাজকীয় সাজে।

প্রতিমার কাপড় ও দুর্গা সেট হাতে তৈরির জন্য বিখ্যাত পোষাক ঘরের কর্ণধার ররুন দত্ত বলেন, আমরা মূলত অর্ডার নিয়ে বিভিন্ন আইটেমের পোশাক তৈরি করি। পূজার জন্য বিখ্যাত কাপড়গুলো বেশি বিক্রি হচ্ছে।

তিনি বলেন, দুর্গা সেট, প্রতিমা কাপড়, কিত্তনের মাল, কদম মালা এবং নাটক বা যাত্রাপালার জন্য গণেশ ও মা দুর্গাসহ বিভিন্ন আইটেমের পোশাক ভালো বিক্রি হয়েছে। এর মধ্যে খান্দানী রয়েল অন্যতম। এর মূল্য রাখা হয়েছে ৪ হাজার টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত।

মা মনসা শঙ্খ শিল্পালয়ের সৌমিত্র দাস বলেন, মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো থাকলে মনও ভালো থাকে। ফলে উৎসবও জমে; সেইসঙ্গে ব্যবসাও জমে। এবার পূজায় সবচেয়ে বেশি বিক্রির তালিকায় রয়েছে ঠাকুরের শাখা, আলতা, সিদুরসহ অন্যান্য পূজার উপকরণ।

shakari-bazar3

পূজার সরঞ্জাম বিক্রিতে ব্যস্ত এক বিক্রেতা।

দুর্গা সেট, প্রতিমা কাপড়সহ পূজার সরঞ্জামাদির ব্যবসা ভালো হলেও এ পূজায় ঢাক-ঢোলের ব্যবসা ভালো হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন ঢাক-ঢোল ব্যবসায়ীরা। সুর সাগরের সম্বু দাস বলেন, এবার পূজায় ঢাক-ঢোলের ব্যবসা মাঝারি পর্যায়ে। তবে গতবারে তুলনায় এবার ব্যবসা কমে গেছে।

একই কথা জানালেন মৃদাঙ্গ সুর বিতানের সুবল চন্দ্র দাস। তিনি বলেন, দেশের অবস্থা খারাপ হওয়ায় মানুষের মনে শান্তি নেই। কোথায় কখন কী হয়; সব সময় অতঙ্ক কাজ করছে। ফলে ঢাক-ঢোলের ব্যবসা ভালো হচ্ছে না।

অর্থসূচক/মুন্নাফ/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ