শুরু হচ্ছে এনবিআরের কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরাম
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অর্থনীতি

শুরু হচ্ছে এনবিআরের কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরাম

কর প্রদানে সামর্থ্যবান নাগরিকদের আয়কর সম্পর্কে সম্যক ধারণা দিতে এবং ব্যবসায়ী ও সাধারণ নাগরিকদের ভ্যাট প্রদানে সচেতন ও উদ্ধুদ্ধ করতে ‘কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরাম’ চালুর উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার রংপুর কমিশনারেটে কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরামের প্রথম মতবিনিময় সভার উদ্বোধন করবেন এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

আগামী নভেম্বরের মধ্যে সব কর ও ভ্যাট কার্যালয়ে পর্যায়ক্রমে এই ফোরামের কার্যক্রম চালু হবে বলে জানিয়েছেন এনবিআরের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা সৈয়দ এ মু’মেন।

তিনি জানান, বিনিয়োগ ও উন্নয়নের অপার সম্ভাবনার দেশ বাংলাদেশ। এই সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দিতে প্রয়োজন যথাযথ প্রয়াস ও কাঙ্খিত রাজস্ব আহরণ। এনবিআর প্রবর্তিত ‘সুশাসন ও উন্নততর ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি’ নীতি যথাযথভাবে অনুসরণ করে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সব অংশীজনদের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে নেওয়া হচ্ছে করদাতাবান্ধব পরিবেশ তৈরির নতুন নতুন কর্মসূচি। এর মধ্যে ‘কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরাম’ চালুর উদ্যোগ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

করদাতাদের সঙ্গে আয়কর ও ভ্যাট বিভাগ পর্যায়ক্রমে মতবিনিময় করবেন এবং করদাতাদের কর ও ভ্যাট বিষয়ক বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিবেন বলে জানান তিনি।

সৈয়দ এ মু’মেন বলেন, রাষ্ট্রের সর্ব ক্ষেত্রে একটি রাজস্ব বান্ধব সংস্কৃতি গড়ে তোলার লক্ষ্যে রংপুর কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের সম্মেলন কক্ষে আগামী ৬ অক্টোবর প্রথমবারের মতো ‘কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরাম’ এর যাত্রা শুরু হতে যাচ্ছে। এতে এনবিআর চেয়ারম্যান, কর ও ভ্যাট বিভাগের সদস্যসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, রংপুর অঞ্চলের সুধী সমাজ, পেশাজীবী, ব্যবসায়ী, মাঠ প্রশাসন ও স্থানীয় সরকার বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

‘কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরাম’ এর মাধ্যমে করদাতা ও ব্যবসায়ীরা যেসব সুবিধা পাবেন-

১.  এ ফোরামে সাধারণ করদাতার পাশাপাশি ব্যক্তি খাত, প্রতিষ্ঠানিক খাত, সরকারি-বেসরকারি, এনজিও এবং অন্যান্য সংগঠন, সংস্থার করদাতারা কর বিষয়ক বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর পাবেন।

২. আগামী ৩০ নভেম্বর ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ হওয়ায় করদাতারা রিটার্ন জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সহযোগিতা পাবেন।

৩. স্কুল-কলেজ শিক্ষকরা এসব ফোরামের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে পারবেন।

৪. কর ও ভ্যাট প্রদান ব্যবস্থাপনা আরও সহজতর হবে।

৫. করদাতা ও ব্যবসায়ীদের কর ও ভ্যাট বিষয়ে সহজ, বোধগম্য বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর কর ও ভ্যাট প্রদানে সহায়ক হবে।

৬. কর ও ভ্যাট কার্যালয়ের সঙ্গে করদাতা ও ব্যবসায়ীদের সম্পর্ক যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি উন্নত থাকবে;

৭. এ ফোরামের মাধ্যমে হয়রানি বন্ধ, সৃষ্টি হবে করদাতাবান্ধব পরিবেশ;

৮. মূল্য সংযোজন ও সম্পূরক শুল্ক আইন, ২০১২ যা জুলাই ২০১৭ সালে বাস্তবায়িত হবে। এ আইনে ব্যবসায়ী ও সাধারণ নাগরিকরা কি কি সুবিধা পাবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, রাজস্ব সংগ্রহ কার্যক্রম জোরদারের  পাশাপাশি দেশে শিল্পায়ন, প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নে সম্মানিত করদাতারা আমাদের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশীজন। করদাতাদের সঙ্গে বিভিন্ন সময় বিষয়ভিত্তিক আলোচনা, রাজস্ব সংলাপ, মতবিনিময় সভা এবং অন্যান্য অনুষ্ঠানে কর ও ভ্যাট প্রদান পদ্ধতি আরও সহজ হবে।

আয়কর রিটার্ন জমাদান, ভ্যাট নিবন্ধনসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে কর ও ভ্যাট প্রদান বিষয়টি যাতে আরও সহজতর হয়, এজন্য তাদের চাহিদা ও মতামতের বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আমরা ‘কর ও ভ্যাট শিক্ষণ সহায়ক ফোরাম’ চালু করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

অর্থসূচক/মাইদুল/এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ