লাফার্জকে কিনতে ৪ হাজার কোটি রুপির বন্ড
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

লাফার্জকে কিনতে ৪ হাজার কোটি রুপির বন্ড

লাফার্জ সিমেন্টের তিনটি কারখানা কিনতে বন্ড ছেড়ে ৪ হাজার কোটি রুটি সংগ্রহ করছে নিরমা গ্রুপ। বন্ডে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে অভাবনীয় সাড়া পেয়েছে সাবান ও ডিটারজেন্ট প্রস্তুতকারী ভারতের শীর্ষ এ কোম্পানি।

আজ সোমবার ছিল বন্ড কেনার জন্য প্রস্তাব জমা দেওয়ার শেষ দিন। এদিন পর্যন্ত ৬ হাজার কোটি রুপির বন্ড কেনার প্রস্তাব জমা পড়ে। খবর রয়টার্স ও ইকনোমিক টাইমসের

নিরমার এ বন্ড ভারতে স্থানীয় মুদ্রায় (রুপি) সবচেয়ে বড় আকারের বড় ইস্যুর রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। পাঁচ বছর মেয়াদি এ বন্ডে গড় বার্ষিক সুদের হার ৮.৬৮ শতাংশ। এটি পাঁচ বছরে পর্যাক্রমে অবসায়িত হবে। বন্ডটি বোম্বেস্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হবে।

উল্লেখ, গত জুলাই মাসে কারখানা ক্রয়-বিক্রয়ের বিষয়ে লাফার্জ ইন্ডিয়া এবং নিরমা গ্রুপের মধ্যে চুক্তি হয়। এ চুক্তির আওতায় নিরমা ভারতে অবস্থিত লাফার্জের তিনটি কারখানাসহ সব সম্পদ কিনে নেবে। আর এর জন্য কোম্পানিটিকে বিনিয়োগ করতে হবে ১৪০ কোটি ডলার।

সুইস কোম্পানি হোলসিমের সঙ্গে একীভূতকরণ (Merger) প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে ভারতে তিনটি কারখানা বেচতে হচ্ছে ফরাসি কোম্পানি লাফার্জকে। লাফার্জ ও হোলসিমের একীভূতকরণ এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে বড় মার্জারের ঘটনা।

লাফার্জকে কেনার মাধ্যমে বড় ধরনের ব্যবসা বহুমুখীকরণের দিকে যাচ্ছে নিরমা। লাফার্জের তিন কারখানা কেনার অর্থ সংগ্রহে বন্ড ইন্যু করার জন্য নিরমা গ্রুপ নিরকেম (Nirchem) নামে একটি স্পেশাল পারপাস ভেহিক্যাল গঠন করে। তার মাধ্যমেই আলোচিত বন্ড ইস্যু করা হয়।

বন্ড ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব দেওয়া হয় বার্কলেস (Barclays), ক্রেডিট সুইস (Credit Suisse) এবং আইডিএফসিকে (IDFC)।

তবে নিরমা লাফার্জের তিন কারখানা কিনে নিলেও সিমেন্ট ব্যবসায় বেশ দাপটের সঙ্গেই থেকে যাবে লাফার্জহোলসিম। দুই সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসিসি লিমিটেড এবং আমবুজা সিমেন্টের মাধ্যমে ব্যবসা চালিয়ে যাবে কোম্পানিটি। এই দুটি সাবসিডিয়ারি কোম্পানির বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা ৬ কোটি টন। ভারতজুড়ে এদের বিতরণ নেটওয়ার্কও আছে।

লাফার্জের কারখানার ক্রেতা নিরমা গ্রুপ ভারতের অন্যতম শীর্ষ শিল্পগোষ্ঠি। দেশটিতে সাবান, ডিটারজেন্ট, লবন, সোডা অ্যাশ, কস্টিক সোডা, সিমেন্ট, প্যাকেজিং এবং গৃহস্থালীতে ব্যবহার্য বিভিন্ন পণ্যের জোরালো ব্যবসা আছে এই গ্রুপের। ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্রে ওই কোম্পানির ১২টির বেশি কারখানা আছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ