‘পরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানোই বড় চ্যালেঞ্জ’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘পরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানোই বড় চ্যালেঞ্জ’

সড়ক ও পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাকেই বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এটা আমাকে অতিক্রম করতেই হবে।

আজ সোমবার ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে ডিআরইউ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, সড়ক ও পরিবহন সেক্টরে আমরা যত কিছুই করি না কেন, সড়কের বিশৃঙ্খলা ঠেকানো সম্ভব না হলে জনগণ কোনো সুফল পাবে না। তাই অন্যান্য উদ্যোগের পাশাপাশি সড়ক এবং পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে।

obaidul-kader

ডিআরইউ এর সাগর-রুনি মিলনায়তনে ডিআরইউ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সাধারণ মানুষ আইন মানলেও অসাধারণ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের আইন মানানো যায় না উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সাধারণ মানুষকে আইন মানানো যায়। তারা কথা শুনেন; তবে রাজনৈতিক, অসাধারণ এবং ভিআইপিদের আইন মানানো যায় না। বাঁধা দিলে তারা (রাজনৈতিক ব্যক্তি) পুলিশের উপর আক্রমণ করে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গত বছরের তুলনায় এ বছর সড়ক দুর্ঘটনা অর্ধেকে নেমে এসেছিল। তবে হঠাৎ ঈদুল আযহায় সড়কে পাখির মতো মানুষ মরেছে। সড়ক ও পরিবহন সেক্টরের মন্ত্রী হিসেবে এর দায় আমিও এড়াতে পারি না।

হঠাৎ সড়ক দুর্ঘটনা বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে মন্ত্রী বলেন, দুর্ঘটনার প্রধান কারণ বেপরোয়া ড্রাইভিং। এটা কমাতে পারছি না। বর্তমানে রাস্তা ভালো হওয়ায় গাড়ির গতি বাড়লেও চালকের বেপরোয়াভাবের কারণে দুর্ঘটনা বেড়েছে।

তিনি জানান, ঢাকা সিটিতে বর্তমানে ১৫ লাখ রিকশা থাকলেও মাত্র ৫০ হাজার রিকশার লাইসেন্স আছে। রাজধানীর যানজট কমাতে এগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। রিকশা এবং ইজিবাইকের বিকল্প খুঁজে বের করতে হবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে বর্তমানে দেশি ও বিদেশি কোনো চাপ বা তাগিদ নেই। এছাড়া মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোনো দাবি আমরা কোথাও থেকে পাইনি। বিরোধীরা আরেকটি নির্বাচন দেওয়ার মতো কোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে পারেনি। সেখানে আমরা কেন মধ্যবর্তী নির্বাচনের নাটক সাজাবো?

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিআরইউর সভাপতি জামাল উদ্দিন এবং সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ।

অর্থসূচক/মেহেদী/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ