শিশুদের ঈদ শেষ হয় না!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

শিশুদের ঈদ শেষ হয় না!

আজ শনিবার, ঈদুল আযহার পঞ্চম দিন। তবুও রাজধানীর বিনোদন কেন্দ্রগুলো দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখর ছিল। বিশেষ করে রাজধানীর শাহবাগ শিশুপার্কে ছিল শিশু-কিশোরদের উপচে পড়া ভিড়। ঈদের আনন্দে মাতোয়ারা ছিল তারা। ঈদের আনন্দ তাদের শেষই হয় না।unnamed-5

ঈদের ছুটি শেষ হতে না হতেই সাপ্তাহিক ছুটি শুক্র ও শনিবার। ঈদের আমেজে এই ছুটিতে ঘরের কোণে বসে থাকা চলে না। তাইতো বাবা-মায়ের হাত ধরে তারা এসেছে শিশুপার্কে।  শনিবার সকাল থেকেই শাহবাগের শিশুপার্ক দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠে। তবে সকাল গড়িয়ে বিকেল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দর্শনার্থীদের ভিড় বাড়তে থাকে।

শিশুপার্ক ঘুরে দেখা গেছে,  বাবা-মায়ের হাত ধরে পার্কে ঘুরে বেড়াচ্ছে ছোট্ট সোনামণিরা। কেউবা আবার বিভিন্ন রাইডে চড়ছে। কেউ কেউ হাতে বেলুন নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এটি শিশুপার্ক হলেও এখানে রয়েছে সব বয়সী মানুষের আনাগোনা।

ঢাকার আশুলিয়া থেকে নিজের আদরের কণ্যা মিতুকে নিয়ে শিশুপার্কে এসেছেন মামুন আবদুল্লাহ। মেয়ের অনেক দিনের আবদার পার্কের রেলগাড়িতে চড়বে। তিনি অর্থসূচককে বলেন, একমাত্র মেয়ের আবদার পূরণ করতেই শিশুপার্কে আসা। তবে প্রায় দেড় ঘন্টা ধরে রেলগাড়িতে চড়ার জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে আছি।

শিশুপার্কে ম্যাজিক বোটে চড়েছে লাবণী। সঙ্গে রয়েছে তার আম্মু রেবেকা সুলতানা। তারা এসেছেন রাজধানীর বনশ্রী থেকে। প্রথমবারের মতো ম্যাজিক বোটে চড়ে কিছুটা ভয়ও পেয়েছে লাবণী। জানতে চাইলে ছোট্ট লাবণী অর্থসূচককে জানায়, ম্যাজিক বোটে চড়তে তার কিছুটা ভয়ও লেগেছে আবার আনন্দও লেগেছে।

মিরাজ শামস একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। আজ শনিবার ঈদের শেষ ছুটির দিন। ছোট ছেলে ইমরানকে নিয়ে শিশুপার্কে এসেছেন। তিনি বলেন, ছেলের ইচ্ছে শিশুপার্কে আসবে। এতদিন সময় পাইনি। তাই আজকে আসলাম।

শিশুপার্কে কিশোর-কিশোরীদের জন্য ১২ টি রাইড রয়েছে। তা হলে- উড়ন্ত বিমান, উড়ন্ত নভোযান, রোমাঞ্চ চক্র, আনন্দ ঘূর্নি, বিস্ময় চক্র, এসো গাড়ি চড়ি,  ছোটমনিদের রেলগাড়ি, চাকা পায়ে চলা, লম্ব-ঝম্ব, ঝুলন্ত চেয়ার, ফুলদানি আমেজ এবং এফ-৬ জঙি বিমান।

কথা হয় শিশুপার্কে দায়িত্বরত ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সহকারী ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ নুরুজ্জামানের সঙ্গে। তিনি অর্থসূচককে বলেন, বছরের দুই ঈদকে কেন্দ্র করে এখানে প্রচুর দর্শনার্থী আসে। এছাড়া পূজা, নববর্ষসহ অন্যান্য উৎসবের সময় প্রচুর কিশোর-কিশোরীর সমাগম হয়।

তিনি বলেন, পার্কে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের নিজস্ব নিরাপত্তা বলয়সহ আনসার, পুলিশ এবং এসবি সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। শিশুপার্কে আসা শিশুরা যাতে আনন্দ থেকে বঞ্চিত না হয় সে লক্ষ্যে আমরা সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

ঈদ উপলক্ষে শাহবাগের শিশুপার্ক খোলা থাকবে সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। পার্কে প্রবেশ মূল্য ১৫ টাকা। এছাড়া প্রতিটি রাইডে চড়তে খরচ হয় ১০ থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত। শিশুপার্কে এসে বিনোদন প্রেমীরা পার্কের মোটরগাড়ি, রেলগাড়ি, বিমান ও নভোযানে চড়ে অনেকে হই-হুল্লোড় করে আনন্দ করছেন। কেউ জাহাজে, কেউ নাগরদোলায়, কেউ রেলগাড়ি কেউবা আবার পার্কের নিরিবিলি স্থানে আড্ডা দিয়ে সময় পার করছেন।

অর্থসূচক/মুন্নাফ/মেহেদী

এই বিভাগের আরো সংবাদ