‘চট্টগ্রামের মহাসড়কে সিএনজি অটোরিকশা চলবে না’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘চট্টগ্রামের মহাসড়কে সিএনজি অটোরিকশা চলবে না’

চট্টগ্রাম মহানগরীতে কোনোভাবেই ব্যাটারি চালিত রিকশা ও ইজিবাইক চলতে দেয়া যবে না। এছাড়া মহাসড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলাচলও বন্ধের সরকারি সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। এই সিদ্ধান্ত কেউ অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ শনিবার চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকার সিএনজি অটোরিকশা মালিক ও শ্রমিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন তিনি।

obaidul-kader

চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকার সিএনজি অটোরিকশা মালিক ও শ্রমিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং অন্যান্যরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্য মন্ত্রী বলেন, মহাসড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। কোনো অবস্থাতেই এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবে না সরকার। মহাসড়কে সিএনজি অটোরিকশা চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত কার্যকরে প্রয়োজনে আরও কড়াকড়ি আরোপ করা হবে। তবে বিশেষ প্রয়োজনে যেমন: মুমূর্ষ রোগী কিংবা মরদেহ পরিবহনের কাজে সিএনজি অটোরিকশা মহাসড়কে চলাচল করতে পারবে। মানবিক দিকটাও আপনাদের বিবেচনা করতে হবে।

তিনি বলেন, সিএনজি চালিত গাড়িগুলো এখন থেকে এক ঘণ্টা বেশি অর্থাৎ সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত এই তিন ঘণ্টা মহাসড়কের পাশে অবস্থিত সিএনজি ফিলিং স্টেশন থেকে গ্যাস নিতে পারবে। তবে ৯টার পর কোনো সিএনজি অটোরিকশা মহাসড়কে দেখা গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সম্প্রতি সড়ক দুর্ঘটনা বেড়ে যাওয়ার জন্য চালকদের বেপরোয়া ভাবকে দায়ী করে ওবায়দুল কাদের বলেন, যেভাবে রাস্তা প্রশস্ত করা হয়েছে, তাতে বোয়িং বিমান উঠানামা করতে পারবে। প্রশস্ত সড়ক পেয়ে চালকরা আলেকজেন্ডার হয়ে গেছেন; যেমন ইচ্ছা তেমন গতিতে গাড়ি চালাচ্ছেন। এতেই দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে।

শহরে পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে চট্টগ্রামের মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দিনকে প্রধান করে কমিটি হয়েছিল জানিয়ে মেয়রের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, আরও চার বছর আপনি ক্ষমতায় থাকবেন। যতদিন দায়িত্বে থাকবেন, যশ নিয়ে থাকবেন। মেয়রকে আগে বিলবোর্ড উচ্ছেদের দায়িত্ব দিয়েছিলাম। সেই দায়িত্ব শতভাগ পালন করেছেন। তার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। তবে পরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে কমিটি গঠনের পর অনেক সময় পার হলেও কোনো পরিবর্তন না দেখাটা দুঃখজনক।

আগামী ২১ সেপ্টেম্বর গণপরিবহন মালিক শ্রমিক ও সিএনজি ট্যাক্সি মালিক শ্রমিকদের সঙ্গে বৈঠকের সিদ্ধান্তের কথা মন্ত্রীকে জানান চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দিন।

সংসদ সদস্য এম.এ. লতিফ, শামসুল হক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ফারুক জলিল, জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, বিআরটিএ উপ-পরিচালক মো.শহিদুল্লাহ, সড়ক পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

অর্থসূচক/দেবব্রত/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ