মারাত্মক সংক্রমণ ব্যাধি প্রতিরোধে একত্রে কাজ করার আহ্বান
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মারাত্মক সংক্রমণ ব্যাধি প্রতিরোধে একত্রে কাজ করার আহ্বান

বিশ্বের সবচেয়ে মারাত্মক তিনটি সংক্রমণ ব্যাধি এইডস, যক্ষ্মা ও ম্যালেরিয়া প্রতিরোধে একত্রে কাজ করার জন্য বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

hasina_global-fundশুক্রবার কানাডার মন্ট্রিয়ালে অনুষ্ঠিত ফিফথ গ্লোবাল ফান্ড (জিএফ) রিপ্লেনিসমেন্ট কনফারেন্সের উদ্বোধনী অধিবেশনে এ আহ্বান জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি এইডস, যক্ষ্মা ও ম্যালেরিয়া প্রতিরোধযোগ্য ও এসব রোগ চিকিৎসার মাধ্যমে নিরাময় সম্ভব। এজন্য প্রয়োজন অঙ্গীকার, সংকল্প ও সংহতি। একত্রে কাজ করার এই অঙ্গীকার এই ব্যাধির অবসান ঘটাতে পারে।

দেশের সব জনগণের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে সরকারের প্রচেষ্টায় বৈশ্বিক তহবিলের সহযোগিতা চেয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য অবকাঠামো, স্বাস্থ্যপণ্য ও সেবায় বিনিয়োগের মাধ্যমে স্বাস্থ্য নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছে সরকার।

শেখ হাসিনা বলেন, উন্নয়নের জন্য স্বাস্থ্য নিরাপত্তাকে একটি ‘গুরুত্বপূর্ণ দিক’। আমাদের সমাজের জন্য স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা অত্যন্ত জরুরি।

তিনি বলেন, বিশ্ব আজ উন্নয়ন প্রত্যাশার এক সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে আছে। দারিদ্র্যমুক্ত সবল একটি বিশ্ব সমাজ সৃষ্টির লক্ষ্যে আমরা টেকসই উন্নয়নের জন্য ২০১৫ সালে বিশেষ কার্যক্রম গ্রহণ করেছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সক্ষমতা ও সম্পদের সীমাবদ্ধতা সত্বেও বাংলাদেশ স্বাস্থ্য সংক্রান্ত লক্ষ্যসহ এমডিজির লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম হয়েছে। গত দুই দশকে মাতৃমৃত্যুর হার ৭০ শতাংশ কমেছে। এছাড়া পাঁচ বছরের নিচের শিশুদের মৃত্যুহার ৬৬ শতাংশ এবং গত দেড় দশকে নবজাতকের মৃত্যুহার ৬২ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। সরকারের কার্যকর নীতি ও বাস্তবসম্মত কার্যক্রম গ্রহণের ফলে এটি সম্ভব হয়েছে।

কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন এবং লা ফ্রাঙ্কোফনির বিষয়ক মন্ত্রী ম্যারেই ক্লদি বিবেউ এর পরিচালনায় এ অধিবেশনে আরও বক্তব্য রাখেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, সেনেগালের প্রেসিডেন্ট ম্যাকি সল, টোগোর প্রেসিডেন্ট ফুয়ারে গ্রেন্সিভ, গ্লোবাল তহবিলের নির্বাহী পরিচালক মার্ক আর দাইবাল ও আন্তর্জাতিক সংস্থা লা ফ্রাঙ্কোফনির মহাসচিব মিখায়েল জেন।

এইডস, যক্ষ্মা, ম্যালেরিয়া প্রতিরোধ ও চিকিৎসা সম্পর্কিত কার্যক্রমের জন্য প্রধান অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে গ্লোবাল ফান্ড। বিশ্বব্যাপী যে সব এলাকায় এসব রোগ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে- সে সব এলাকায় সহায়তার লক্ষ্যে এই তহবিল করা হয়।

সূত্র: বাসস

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ