হাজিদের পদচারণায় সরগরম মক্কার বাজার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

হাজিদের পদচারণায় সরগরম মক্কার বাজার

হজ শেষ; এবার হাজিদের নিজ দেশে ফেরার পালা। আগামীকাল শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে ফিরতি হজ ফ্লাইট। হজের আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রিয়জনদের জন্য উপহার সংগ্রহে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন হাজিরা। আর হাজিদের পদচারণায় মুখরিত হচ্ছে মক্কার প্রসিদ্ধ বাজার এবং সুপার শপগুলো।

আজ শুক্রবার আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, প্রতিবারের মতো এবারও গ্র্যান্ড মসজিদের কাছের বাজার; শপিং মল এবং সুপার শপগুলোতে হাজিদের ভিড় অনেক বেশি। শুধু বাজার; শপিং মল এবং সুপার শপ নয়; এর আশপাশের রেস্টুরেন্ট এবং খাবারের দোকানগুলোতেও ভিড় করছেন হাজিরা।

আহমদ আবু আরাব নামে হাজির বরাত দিয়ে এতে জানানো হয়েছে, হজ শেষে মক্কার আশপাশে দোকানগুলোতে কেনাকাটা বেশ সুবিধাজনক। এখানে অনেকটা সাধ্যের মধ্যে প্রয়োজনীয় অনেক জিনিস পাওয়া যায়। হজের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়েছে, তাই বাড়ি ফেরার আগে প্রিয়জনদের জন্য কিছু উপহার এবং ধর্মীয় কাজে ব্যবহৃত কিছু জিনিস সংগ্রহ করে নিচ্ছি। হজ পালন অবশ্যই স্মরণীয় একটি স্মৃতি হয়ে থাকবে। একইসঙ্গে এখান থেকে নিয়ে যাওয়া জিনিসগুলো প্রিয়জনদের দিলে পরবর্তীতে তারাও আমাদের স্মরণ করবে।makkah-market

কিছু ফল এবং সবজি কিনতে মক্কার বাজারে হাজির হয়েছেন কেনিয়া থেকে হজ করতে আসা নুর আবদু। তিনি জানান, মূলত দুই দেশের মধ্যে পণ্যের দামের পার্থক্য বুঝতে এসব কিনতে এসেছি।

আবু আহমেদ নামের স্থানীয় দোকানি জানান, প্রতি বছরই হজের আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রায় সব ধরনের পণ্যের চাহিদা বেড়ে যায়। মূলত হাজির পণ্য কেনার চাহিদার কারণেই এমনটি হয়। সাধারণত হজের পরের কয়েকদিনের বেচাকেনা সারা বছরের কেনাবেচার পরিমাণকে ছাড়িয়ে যায়। চাহিদা বাড়ার বিষয়টি মাথায় রেখে চাদর, কার্পেট জাতীয় পণ্য, তসবি, মহিলাদের আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র ইত্যাদির মজুদ অনেক বাড়িয়েছি।

হজের পরের কয়েকদিনে বেচাকেনা অনেক বেড়ে যায় জানিয়ে তিনি বলেন, এ সময়ের বাড়তি চাপ সামলাতে আত্মীয় ও পরিচিতদের মধ্য থেকে কয়েকজনকে বিক্রির কাছে ডাকতে হয়। প্রতি বছর এ সময়ে দৈনিক ১২ ঘণ্টারও বেশি সময় দোকান খোলা রাখতে হয়।

পণ্যের দাম প্রসঙ্গে কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, চাহিদা বেড়ে গেলেও এখানকার দোকানদার পণ্যের দাম বাড়ায় না। সাধারণত বছরের অন্যান্য সময়ে যে দামে পণ্য বিক্রি হয় এখনও একই দামে পণ্য বিক্রি হচ্ছে। জনসাধারণের নাগালে রাখতে পণ্যের দাম বাড়ানো হয় না।

অর্থসূচক/মিঠুন/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ