শ্রীলঙ্কাকে টপকে ওডিআইতে রেকর্ড রান ইংল্যান্ডের
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

শ্রীলঙ্কাকে টপকে ওডিআইতে রেকর্ড রান ইংল্যান্ডের

একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে শ্রীলঙ্কার করা ৪৪৩ রান টপকে সর্বোচ্চ রানের নতুন রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ড। গতকাল মঙ্গলবার ট্রেন্ট ব্রিজ স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের বিপক্ষে এ রেকর্ড গড়েন অ্যালেক্স হেলস, জশ বাটলাররা। আর এ রেকর্ড গড়তে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়েছে স্বাগতিকরা।

শুধু দলীয় সর্বোচ্চ রান নয়; এ ম্যাচে ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ওয়ানডে ইনিংসের রেকর্ড গড়লেন অ্যালেক্স হেলস। ইংলিশদের হয়ে দ্রুততম অর্ধশতক গড়লেন জশ বাটলার। ইয়ন মরগানের ব্যাটেও ছিল তুমুল ঝড়। ব্যাটে ঝড় না তুললেও দলীয় স্কোর বড় করতে ৮৫ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছেন জো রুটও।

চলতি সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে পাকিস্তানি বোলিং আক্রমণকে গুঁড়িয়ে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩ উইকেটের বিনিময়ে ৪৪৪ রান করে ইংল্যান্ড। ওয়ানডে ক্রিকেটই এটিই দলীয় সর্বোচ্চে রান। নতুন দলীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ইংল্যান্ডের হয়ে যাওয়ায় ৪৪৩ রান নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে শীর্ষে থাকা শ্রীলঙ্কা নেমে গেছে দ্বিতীয় স্থানে।

Alex Hales & Joe Root

পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় উইকেটে ২৪৮ রানের জুটির এক পর্যায়ে জো রুট ও অ্যালেক্স হেলস।

২০০৬ সালে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে আমস্টেলভিনে ৯ উইকেটে ৪৪৩ রান করেছিল শ্রীলঙ্কা। এরপর তিন বার ওই রেকর্ডের কাছেও গিয়েও রেকর্ড ছুতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। একবার থেমেছিল ৪৩৯ রানে এবং দুইবার ৪৩৮ রানে থামতে হয়েছিল তাদের। অবশেষে নতুন রেকর্ড গড়ল ইংল্যান্ড।

রেকর্ড গড়তে শেষ ওভারে ৬ রান প্রয়োজন ছিল ইংল্যান্ডের। পাকিস্তানের নবীন পেসার হাসান আলির প্রথম পাঁচ বল থেকে আসে মাত্র একটি সিঙ্গেল, একটি বাই। শেষ বলে বাটলারের বাউন্ডারিতে নতুন উচ্চতায় উঠে ইংল্যান্ড। ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় চার শতাধিক রানের স্কোর এটি। ২০১৫ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৯ উইকেটে ৪০৮ করেছিল দলটি।

অন্যদিকে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো চার শতাধিক রানের ইনিংস এটি। এশিয়ার এ ক্রিকেট পরাশক্তির বিপক্ষে আগের সর্বোচ্চ রান ছিল ৩৯২ রান; ২০০৭ সালে ওই রান করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা।

২০ ওভার শেষে ১ উইকেটে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ১২৩ রান। প্রথম অর্ধশতক করতে ৫৫ বল খরচ করেছিলেন হেলস। পরের ৫০ রান করতে মাত্র ২৮ বল ব্যয় করেছেন তিনি। অর্থাৎ ৮৩ বলেই শতরান পূর্ণ করেন হেলস। পরবর্তী ৩৯ বলে করেন আরও ৭১ রান। ৩৭তম ওভারে আউট হওয়ার আগে ইংল্যান্ডের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রবিন স্মিথের ১৬৭ রানকে টপকে ১৭১ রান করেন ইংল্যান্ডের এ উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। ইংল্যান্ডের হয়ে এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি বাউন্ডারির রেকর্ডও গড়লেন তিনি। গতকালের ম্যাচে ২২টি বাউন্ডারি এবং ৪টি ওভার বাউন্ডারি খেলেছেন হেলস। ইংল্যান্ডের আগের রেকর্ড ছিল স্ট্রাউসের ১৯ বাউন্ডারি।

Eoin Morgan & Jos Buttler

শ্রীলঙ্কাকে টপকে ওডিআইতে ৪৪৪ রানের রেকর্ড গড়ার পর জশ বাটলারকে নিয়ে মাঠ ছাড়ছেন ইংলিশ অধিনায়ক মরগান।

ইংল্যান্ডের অপর উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জেসন রয় ১৫ রানে আউট হওয়ার পর দ্বিতীয় উইকেটে ২৪৮ রানের জুটি গড়েন জো রুট ও অ্যালেক্স হেলস। ৮৬ বলে ৮৫ রান করেন রুট। তারা দুজন আউট হওয়ার পর ক্রিজে ঝড় তুলেন জশ বাটলার ও ইয়ন মরগান। মাত্র ২২ বলে অর্থশতক করেন বাটলার; ওডিআইতে ইংল্যান্ডের দ্রুততম অর্ধশতক এটি। শেষ পর্যন্ত ৫১ রানে ৯০ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি।

গতকাল পাকিস্তানের বিপক্ষের ম্যাচে ঝড় ওঠেছে মরগানের ব্যাটেও। মাত্র ২৪ বলে অর্ধশতক করার পর ২৭ বলে ৫৭ রানে অপরাজিত থাকেন ইংলিশ অধিনায়ক। চতুর্থ উইকেটে মাত্র ৭২ বলে ১৬১ রানের জুটি গড়েন বাটলার ও মরগান। শেষ ১০ ওভারেই ১৩৫ রান করেন তারা।

অন্যদিকে পাকিস্তানের হয়ে ১০ ওভারে ১১০ রান দেন ফাস্ট বোলার ওয়াহাব রিয়াজ; কোনো উইকেট নিতে পারেননি তিনি। এছাড়া তরুণ ফাস্ট বোলার হাসান আলী ১০ ওভারে ২ উইকেটের বিনিময়ে দিয়েছেন ৭৪ রান। অপর ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ আমিরের ১০ ওভারে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৭২ রান। ইংল্যান্ডের আরেকটি উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ নেওয়াজ; ১০ ওভারে ৬২ রান দিয়ে ১ উইকেট নেন তিনি।

জয়ের জন্য রেকর্ড রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় পাকিস্তান। চতুর্থ ওভারে সামি আসলামকে (৮) সাজঘরে ফেরান ক্রিস ওকস। অষ্টম ওভারে আজহার আলীকে (১৩) আউট করেন তিনি। ১০ম ওভারে শারজিল খানকেও (৫৮) সাজঘরে ফেরান ওকস। এরপর ধারাবাহিক বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে অতিথিরা। একাদশ ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে নেমে ২৮ বলে ৫৮ রানের ইনিংস খেলেন মোহাম্মদ আমির। এছাড়া পাকিস্তানের অন্য কোনো ব্যাটসম্যান ৪০ এর বেশি রান করতে পারেননি।

৪২.৪ ওভারে ২৭৫ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। এতে ১৬৯ রানের ব্যবধানে জয় পায় ইংল্যান্ড।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ