লাইসেন্স বাতিল হতে পারে ১১ রিফাইনারির
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

লাইসেন্স বাতিল হতে পারে ১১ রিফাইনারির

সরকার জ্বালানি তেলের অসাধু রিফাইনারিগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর অ্যাকশনে যাচ্ছে। অনিয়ম ও জালিয়াতির দায়ে বাতিল করা হতে পারে ১১টি রিফাইনারির লাইসেন্স। এসব রিফাইনারির বিরুদ্ধে চোরাইপথে বিভিন্ন পেট্রোলপাম্পের কাছে কনডেনসেট (প্রাকৃতিক গ্যাসের উপজাত) বেচে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। জ্বালানি মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানিয়েছে, শিগগিরই আলোচিত ১১ রিফাইনারির কাছে কারণ-দর্শাও নোটিশ পাঠানো হবে। তাতে পেট্রোবাংলার কাছ থেকে সরবরাহ নিয়ে যে কনডেনসেট বাইরে বিক্রি করা হয়েছে তা ফেরত চাওয়া হবে। অথবা ওই কনডেনসেট থেকে পরিশোধন করা তেল বাংলাদেশ পেট্রলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) কাছে বিক্রি করতে হবে। এই নির্দেশনা পরিপালনে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট রিফাইনারির লাইসেন্স বাতিল করা হবে বলে নোটিশে জানানো হবে।

যেসব রিফাইনারিকে শোকজ করা হবে সেগুলো হচ্ছে-সুপার রিফাইনারি, অ্যাকুয়া মিনারেল, পিএইচপি পেট্রো রিফাইনারি,  চৌধুরী রিফাইনারি, গোল্ডেন অয়েল রিফাইনারি, জেবি রিফাইনারি, ইউনিভার্সাল রিফাইনারি, সিনটেকটিক প্রোডাক্টস, লার্ক পেট্রোলিয়াম, সিভিও পেট্রোকেমিক্যালস ও রূপসা রিফাইনারি।

এর আগে গত জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিভিও পেট্রো কেমিক্যাল রিফাইনারিসহ তিনটি রিফাইনারিতে কনডেনসেট সরবরাহ বন্ধ করে দিতে পেট্রোবাংলাকে নির্দেশ দেয় জ্বালানি মন্ত্রণালয়। তার পরিপ্রেক্ষিতে রিফাইনারিগুলোকে কনডেনসেট সরবরাহ করা বন্ধ করে দেওয়া হয়। যদিও সিভিও ওই নির্দেশনার বিরুদ্ধে উচ্চ আদালত থেকে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আসে।

উল্লেখ, দেশে বর্তমানে এক ডজনের বেশি জ্বালানি তেলের রিফাইনারি রয়েছে। দু’একটি ছাড়া বাকী সব রিফাইনারিই পেট্রোবাংলার অনুমোদনক্রমে বিভিন্ন গ্যাসফিল্ড থেকে কনডেনসেট নিয়ে তা পরিশোধন করে থাকে।

দেশের বিভিন্ন গ্যাস ক্ষেত্রে গ্যাসের সঙ্গে তরল উপজাত পাওয়া যায়। কনডেনসেট নামে পরিচিত এই উপজাত পরিশোধন করে কেরোসিন, ডিজেল, পেট্রোল ও অকটেন তৈরি করা হয়।এছাড়া তারপিনসহ আরও কিছু সহজাত পণ্য পাওয়া যায়। পরিশোধিত অকটেন, পেট্রোল, ডিজেল ও কেরোসিন বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) কাছে বিক্রি করতে হয়। এসব তেল বাইরে বিক্রি করার কোনো অনুমতি নেই।

অভিযোগ রয়েছে, বেশিরভাগ রিফাইনারি পেট্রোবাংলার কাছ থেকে যে পরিমাণ কনডেনসেট নিয়েছে সে অনুপাতে পরিশোধিত তেল বিক্রি করেনি বিপিসির কাছে। সন্দেহ করা হয়, অসাধু ওই রিফাইনারিগুলো কনডেনসেট পরিশোধন না করেই তা বিভিন্ন পেট্রোলপাম্পে বিক্রি করে দিয়েছে। আর এসব পেট্রোলপাম্প অশোধিত কনডেনসেট অকটেন, পেট্রোল, ডিজেলসহ বিভিন্ন প্রকার দামি জ্বালানি তেলের সঙ্গে মিশিয়ে তা বাজারে বিক্রি করেছে। এই ভেজাল তেল একদিকে পরিবেশের জন্য চরম ক্ষতিকর, অন্যদিকে এই তেল ব্যবহার করে মেয়াদের আগেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে মূল্যবান যানবাহন।

কোনো কোনো রিফাইনারির বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, তারা কনডেনসেট পরিশোধন করলেও তা থেকে জ্বালানি তেল উৎপাদন করেনি। তার পরিবর্তে সুপার সলভেন্ট, কেরোসিন সলভেন্টসহ নানা নন-পেট্রোলিয়াম পন্য উৎপাদন করেছে। এগুলোও শর্তের পরিপন্থী।

সব মিলিয়েই সরকার আলোচিত রিফাইনারিগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর অ্যাকশনে যাচ্ছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ