'১২২ কোটি টাকা দ্রুত ফেরত আনা সম্ভব হবে'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘১২২ কোটি টাকা দ্রুত ফেরত আনা সম্ভব হবে’

বাংলাদেশে ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে চুরি হয়ে যাওয়া টাকার একটি অংশ দ্রুত দেশে ফেরত আনা সম্ভব হবে বলে জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার সংসদ ভবনে সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির এক বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

বৈঠকে জানানো হয়, ফেরত আনা সম্ভব এই টাকার পরিমাণ প্রায় ১২২ কোটি। ফিলিপাইনের ক্যাসিনো ব্যবসায়ী কিম অং চুরি যাওয়া টাকা থেকে ফিলিপাইনের অ্যান্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের কাছে এই টাকা জমা দিয়েছেন। বাংলাদেশকে এই টাকা ফেরত দেয়ার জন্য কাউন্সিল ও কিম অং আদালতে আবেদন করলে ১ জুলাই আদালত তা বাজেয়াপ্ত করার আদেশ দেন। এরপর সেই দেশের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে টাকা ফেরত দেয়ার জন্য আবেদন করে। এখন আদালত আদেশ দিলেই ১২২ কোটি টাকা ফেরত পাবে বাংলাদেশ।

বৈঠক শেষে কমিটির সদস্য মুহিবুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক চুরি যাওয়া টাকা উদ্ধারের বিষয়ে তাদের অগ্রগতির প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। এখন আশা করা হচ্ছে- বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরি যাওয়া পুরো টাকা ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

উল্লেখ্য, ৪ ফেব্রুয়ারি হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে বাংলাদেশের রিজার্ভের ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরি করা হয়। পরে এই টাকা ফিলিপাইনের ক্যাসিনোতে চলে যায়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ