চট্টগ্রামে অগ্রিম টিকেট কেনায় সাড়া নেই
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

চট্টগ্রামে অগ্রিম টিকেট কেনায় সাড়া নেই

আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে সারা দেশের মতো চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে আজ থেকে অগ্রিম ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। তবে টিকিট বিক্রির প্রথম দিনে অবিক্রিত রয়ে গেছে অর্ধেকের বেশী টিকিট। সকাল থেকে স্টেশন চত্তরে ঈদের ঘরমুখো মানুষের অগ্রিম টিকিটে কেনার জন্য তেমন কোন ভীড় দেখা যায় নি।

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

সোমবার দুপুরে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, স্টেশনের বেশীরভাগ ট্রেনের টিকিট অবিক্রিত রয়ে গেছে। স্টেশনের বিভিন্ন কাউন্টারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সকাল থেকে তেমন কোন ভিড়ই ছিল না। তবে আগামীকাল অথবা পরশু থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি বেশী হবে বলে জানান তারা।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ বলেন, অগ্রিম টিকিট বিক্রির প্রথম দিনে আগামী ৭ই সেপ্টেম্বর সমগ্র রুটের ৬ হাজার ৭৪২ টি এর মধ্যে কাউন্টারে ছাড়া হয়েছে ৪ হাজার ৬০২ টি।এর মধ্যে বিকাল ৫ টা নাগাদ প্রায় ৪০-৪৫ শতাংশ টিকেট বিক্রি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, তবে কাউন্টারে ছাড়া ২৫ ভাগ টিকেট অনলাইনে, পাঁচ ভাগ ভিআইপি ও পাঁচ ভাগ সরকারী কর্মকর্তাদের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

নতুন রুটের কোন ট্রেন চট্টগ্রাম থেকে ছাড়া হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, কোরবানি ঈদ উপলক্ষে চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটের জন্য চাঁদপুর স্পেশাল নামে এক জোড়া ট্রেন আগামী ৯ই সেপ্টেম্বর থেকে চলাচল শুরু করবে। অনান্য রুটের ট্রেনগুলোতে ৮ সেপ্টেম্বর থেকে ১৩টি অতিরিক্ত বগি  এবং ৯ সেপ্টেম্বরে ১৮টি অতিরিক্ত বগি যুক্ত করা হচ্ছে।

খালি টিকিটগুলো বিক্রি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান, এই টিকিটগুলোর বিক্রি চলমান থাকবে। কেউ যদি আগামীকাল এসে এই দিনের টিকিট কিনতে চায় তাহলে তাদের কাছে আমরা টিকিটগুলো বিক্রি করবো।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে সুত্রে জানা গেছে, আগামীকাল মঙ্গলবার দেওয়া হবে ৮ সেপ্টেম্বরের টিকেট,  ১ সেপ্টেম্বরে দেওয়া হবে ১০ সেপ্টেম্বরের টিকেট এবং ২ সেপ্টেম্বরে দেওয়া হবে ১১ সেপ্টেম্বরের টিকেট। একই ভাবে ৫ সেপ্টেম্বরে দেওয়া হবে ১৪ তারিখের টিকেট এই ভাবে ৫ দিনের অগ্রিম টিকেট দেওয়া হবে।

এদিকে এবার একজন ব্যক্তি সর্বোচ্চ চারটি টিকেট কিনতে পারবেন বলে অর্থসূচককে জানিয়েছেন স্টেশন মাস্টার।

এদিকে দুপুরে আসন্ন ঈদ উপলক্ষে নগরীর রাহাত্তার পুল থেকে ময়মনসিংহের জন্য টিকিট কিনতে এসছিলেন ইব্রাহিম বিল্লাল ও তার ভাগিনা সারোয়ার। ইব্রাহিম হাসিমুখে অর্থসূচককে বলেন, আজ কোন ভিড় পোহাতে হয়নি আমাদের। ৭ টি টিকিট দরকার ছিল। পেয়ে গেলাম। এবার একসাথে সবাই বাড়ি গিয়ে ঈদ করতে পারবো।

রেলওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিমাংশু দাশ রানা জানিয়েছেন, ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি উপলক্ষে রেলস্টেশনে কঠোর নজরদারি পালন করছে আইন- শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা। রেলওয়ে পুলিশ, রেল নিরাপত্তাকর্মী, র‌্যাব, পুলিশ ও গোয়েন্দা শাখার সদস্যদের নিয়ে টিকিট কালোবাজারী রোধে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এছাড়া অগ্রিম টিকেটের জন্য আসা যাত্রীরা যাতে কোন রকমের হয়রানির শিকার না হয় সেদিকেও বিশেষ দৃষ্টি দেয়া হচ্ছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

অর্থসূচক/রাশিদ

এই বিভাগের আরো সংবাদ