চট্টগ্রামে আবাসিক এলাকা থেকে বাণিজ্যিক স্থাপনা সরানোর নির্দেশ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

চট্টগ্রামে আবাসিক এলাকা থেকে বাণিজ্যিক স্থাপনা সরানোর নির্দেশ

চট্টগ্রামের আবাসিক এলাকায় কোন বাণিজ্যিক স্থাপনা থাকতে পারবে না বলে নির্দেশনা জারি করেছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) । সোমবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন এলাকার আবাসিক ভবনে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা বাণিজ্যিক স্থাপনার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে সিডিএ।

CDA buildingঅভিযানের প্রথম দিনে নগরের খুলশী আবাসিক এলাকায় অভিযানের নেতৃত্ব দেন সিডিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খিন ওয়ান নু। ১৩টি ভবন থেকে দুই থেকে তিন মাসের মধ্যে বাণিজ্যিক স্থাপনা সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশ দিয়েছেন সিডিএর ভ্রাম্যমাণ আদালত।

খিন ওয়ান নু অর্থসূচককে বলেন,  দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতে আবাসিক এলাকার মানুষের বাড়তি নিরাপত্তার জন্য এসব এলাকা থেকে বাণিজ্যিক স্থাপনা সরানোর নির্দেশ আমাদের দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া সিডিএর নকশা অনুযায়ী অনুমোদনের সময় আবাসিক না-কি বাণিজ্যিক ব্যবহারের অনুমোদন নিয়েছে সেটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এরপর নগরীর ওয়ার্ড পর্যায়ে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে।

ওই অভিযানের সময় আবাসিক ভবনকে অবৈধভাবে বাণিজ্যিক কাজে ব্যবহার করার জন্য একটি আবাসন প্রতিষ্ঠান ও দুই রেস্তোরাঁ মালিককে মোট ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এই তিনটিসহ মোট ১৩টি ভবন থেকে বাণিজ্যিক স্থাপনা সরিয়ে নিতে ভবনমালিক ও ব্যবহারকারীদের দুই থেকে তিন মাস সময় বেধে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আবাসিক ভবনের অনুমোদন নিয়ে রেস্টুরেন্ট, হোটেল, গেস্ট হাউস, বিপণিবিতান, বাণিজ্যিক অফিস, স্কুল-কলেজ গড়ে তোলার প্রবণতা বাড়ছে। এ অবস্থায় সিডিএ বিভিন্ন আবাসিক এলাকা ও অনুমোদিত বহুতল আবাসিক ভবনগুলোর নকশা এবং বাস্তব চিত্র তুলে ধরে সম্প্রতি তালিকা তৈরি করেছে। তারই ভিত্তিতে উত্তর খুলশীতে অভিযান চালানো হয়েছে।

পর্যায়ক্রমে প্রতিটি আবাসিক এলাকা ও বহুতল ভবনে এ ধরনের অভিযান পরিচালিত হবে বলে জানান সিডিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

সিডিএর ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, খুলশী আবাসিক এলাকার ১ থেকে ৫ নম্বর সড়কের ১৩টি ভবনে অভিযান চালানো হয়। এসব ভবনের মধ্যে ১০টিতে গেস্টহাউস ও রেস্তোরাঁ, একটিতে ব্যাংকের শাখা কার্যালয়, একটিতে আবাসন প্রতিষ্ঠানের কার্যালয় এবং অন্যটিতে বায়িং হাউস রয়েছে। অভিযানে ইমপালস প্রপার্টিজ লিমিটেডকে ৫০ হাজার টাকা, দুই রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ী জাবেদ আলম ও মামুনুর রহমানকে ২০ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৩ আগস্ট চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সম্মেলন কক্ষে ২১টি সেবাদাতা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধাসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের সমন্বয় সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন নগরীর খুলশী, নাসিরাবাদসহ বিভিন্ন আবাসিক এলাকার ভবনে অবৈধভাবে গড়ে তোলা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের তালিকা চেয়েছিলেন। সভায় সিডিএ’র ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী জসিম উদ্দিনকে এ ব্যাপারে নির্দেশনা দেন তিনি।

সিডিএর অথরাইজড কর্মকর্তা মো. মনজুর হাসান বলেন, সিডিএর অনুমতি ছাড়া নগরের বিভিন্ন এলাকায় আবাসিক ভবনে বাণিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এসব বাণিজ্যিক স্থাপনা অপসারণে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা রয়েছে। এ নির্দেশনা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে নগরীর সব আবাসিক এলাকায় অভিযান চালানো হবে।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন সিডিএর প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ শাহীন উল ইসলাম খান, অথরাইজড কর্মকর্তা মো. মনজুর হাসান, সহকারী অথরাইজড কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন ও তানজীব হোসেন। অভিযানে সহায়তা করে মেট্রোপলিটন পুলিশ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ