জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনে করবে বাংলাদেশ-ভারত
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনে করবে বাংলাদেশ-ভারত

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সম্পর্কিত তথ্য পর্যবেক্ষণ ও বিনিময়ের জন্য যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনে বাংলাদেশের সঙ্গে সমঝোতা করতে একমত হয়েছে ভারত।

দিল্লি সফররত তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু আজ শুক্রবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, তথ্য বিনিময়ের জন্য শিগগিরই একটি যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরি করতে সমঝোতা স্মারকে সই করার বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

মন্ত্রীর বরাত দিয়ে একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সন্ত্রাসবাদ ও মৌলবাদের মোকাবেলা করতে হবে রাজনৈতিকভাবে, এটা কেবল আইন-শৃঙ্খলার বিষয় নয়। সঠিক তথ্যের যথাযথ প্রাপ্তি নিশ্চিত করা গেলে সন্ত্রাসবাদ ও মৌলবাদ হটানো সহজ হবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী ইনু বলেন, বাংলাদেশের সাম্প্রতিক জঙ্গিবাদের পেছনে জামায়াতে ইসলামী ও পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এর ইন্ধন রয়েছে। এসব ঘটনার সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গি দল আইএস এর কোনো যোগাযোগ নেই।

তিনি বলেন, ব্লগার ও অধিকারকর্মীদের ওপর ৪৩টি হামলার ঘটনায় তদন্তকারীরা দেখেছেন, ৯০ শতাংশ ক্ষেত্রে হামলাকারীদের শেকড় ছিল জামায়াত অথবা ছাত্রশিবিরে।

মন্ত্রী জানান, ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ও ভারত যৌথভাবে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের ওপর একটি তথ্যচিত্র ও ফিচার ফিল্ম নির্মাণ করা হবে। ইতিহাস বিকৃতি ও মিথ্য প্রচার রোধে  সহায়তা করবে এটি।

হাসানুল হক ইনু আরও বলেন, আমরা নতুন করে বাংলাদেশকে আবিষ্কার করব, ইতিহাসকে আবিষ্কার করব। সেই সঙ্গে এটা সন্ত্রাস ও মৌলবাদকেও ধ্বংস করবে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মত্যাগ করা আট হাজার ভারতীয় সেনা সদস্যকে স্বীকৃতি দিতে দিল্লিকে তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানানোর অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এর আগে ভারতের তথ্যমন্ত্রী ভেঙ্কাইয়া নাইডু এবং দিল্লির নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ