অলিম্পিকে স্বর্ণ, চুমু দুটোই জিতলেন ফারাহ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

অলিম্পিকে স্বর্ণ, চুমু দুটোই জিতলেন ফারাহ

দুর্দান্ত দৌড় দিয়ে স্বর্ণ জেতার পর যদি লাস্যময়ী নারীর চুমু পাওয়া যায় তাহলে তো সোনায় সোহাগা। এমন সোনার কপাল নিয়ে জন্মেছেন ফারাহ মোহাম্মদ। ১০ কিলোমিটার ঘামঝরা দৌড়ের পর প্রিয়তমা স্ত্রীর সোহাগী চুম্বন সব ক্লান্তি ভুলিয়ে দিয়েছে নিশ্চয়ই। তাই দৌড়ের শুরুতে অন্য এক প্রতিযোগী ল্যাং মেরে ফেলে দিলেও আশাহত হয়ে মোটেও হাল ছাড়েননি তিনি, মাটি থেকে উঠে ফের দৌড় লাগান।

এটি একজন অ্যাথলেটের সাধারণ জয় নয়। হারার আগে হার না মানা, কখনো আশা না ছাড়া আর নিজের প্রতি বিশ্বাস ধরে রাখার মহিমায় অনন্য এক জয়। এ জয় মানুষের শ্রেষ্ঠত্বের। 

Farah-Tania

ঘামঝরানো দৌঁড়ে জয়ের পর ফারাহকে ভালোবাসার চুম্বনে সিক্ত করছেন স্ত্রী তানিয়া

রোববার ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল অনলাইন এ তথ্য জানিয়েছে। খবরে বলা হয়, দৌড় শুরুর সঙ্গে সঙ্গে আমেরিকান প্রতিদ্বন্দ্বী গ্যালান রাপ ফারাহকে ল্যাং মেরে ফেলে দেন। ফলে বেশ কয়েকজনের পেছনে পড়ে যান ফারাহ। তবে শেষমেষ সবাইকে হার মানিয়ে জিতে নিলেন স্বর্ণপদক। ৩৩ বয়সী ফারাহ তার ঠিক সামনের প্রতিযোগীকে শেষের ২০০ মিটারের মধ্যেই অতিক্রম করেন। এ নিয়ে তার ঝুলিতে যোগ হল ৩টি স্বর্ণপদক। ৪ বছর আগে লন্ডনে অনুষ্ঠিত অলিম্পিকে স্বর্ণ জেতার পর রিওতেও একই কারিশমা দেখালেন ফারাহ।

৪ সন্তানের পিতা মোহাম্মদ ফারাহ প্রতিযোগিতার শুরুর দিকে পড়ে গিয়ে হেরে যাবেন বলে শঙ্কিত হয়ে যান। কিন্তু দুর্দমনীয় ফারাহর স্ত্রী গ্যালারিতে থেকে তাকে উৎসাহ দিতে থাকেন। প্রতিযোগিতা শেষে দেখা মেলে সেই বিরল দৃশ্যের। দৌড় শেষে স্বামী-স্ত্রীর চুমুর দৃশ্য নাড়া দেয় গোটা গ্যালারিকে। আবেগ মথিত করে তুলে শত শত দর্শককে।

স্বর্ণ জেতার পর আবেগে কেঁদে ফেলেন ফারাহ। তিনি বলছিলেন, অলিম্পিকের জন্য প্রস্তুতি নিতে গিয়ে বছরের ৬ মাস পরিবারের সাথে দেখা করার সুযোগও পাননি। যখন পড়ে গেলাম তখন মনে হচ্ছিল এতদিনের ত্যাগ ও পরিশ্রম নষ্ট হয়ে যাবে। স্বর্ণ জেতার স্বপ্ন ব্যর্থ হয়ে যাবে- এটা ভাবতেই কষ্ট হচ্ছিল। চোখের সামনে ভেসে উঠল স্ত্রী-সন্তানদের ছবি। আর তাতেই মনে হল, না, হাল ছাড়া যাবে না। আমাকে শেষ দেখতে হবে।….. স্ত্রী ও সন্তানের এমন হাসিমুখই তো আমার আরাধ্য ছিল।

ফারাহ একমাত্র ব্রিটিশ অ্যাথলেট যিনি পরপর দুই অলিম্পিকে স্বর্ণপদক জিতেছেন। এবার রিওতে ৩৪ প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলেছেন তিনি।

দৌড় শুরুর সঙ্গে সঙ্গে আমেরিকান প্রতিদ্বন্দ্বী গ্যালান রাপ ফারাহকে ল্যাং মেরে ফেলে দেন। ফলে বেশ কয়েকজনের পেছনে পড়ে যান ফারাহ।

দৌড় শুরুর সঙ্গে সঙ্গে আমেরিকান প্রতিদ্বন্দ্বী গ্যালান রাপ ফারাহকে ল্যাং মেরে ফেলে দেন। ফলে বেশ কয়েকজনের পেছনে পড়ে যান ফারাহ।

স্ত্রী তানিয়া গ্যালারি থেকে ফারাহকে উৎসাহ দিতে থাকেন

দৌড়ের মাঝখানে পড়ে গিয়ে একটু পিছিয়ে গেলেও স্ত্রী তানিয়া একটু হতাশ হননি, বরং গ্যালারি থেকে গলা ফাটানো চিৎকারে স্বামী ফারাহকে উৎসাহ দিতে থাকেন

স্বর্ণজয়ের পর মহান আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সিজদায় নত হন মোহাম্মদ ফারাহ

স্বর্ণজয়ের পর মহান আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সিজদায় নত হন মোহাম্মদ ফারাহ। তখন তার ডান কাঁধে ক্ষত দেখা যায়। পড়ে গিয়েই এই আঘাত পান তিনি।

অবশেষে স্বপ্ন সত্যি হল

অবশেষে স্বপ্ন সত্যি হল

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Farah-Femily

স্ত্রী ও কন্যার সঙ্গে জয়ের আনন্দ ভাগাভাগি

অর্থসূচক/রাশিদ

এই বিভাগের আরো সংবাদ