রিওতে হিজাব বনাম বিকিনি!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রিওতে হিজাব বনাম বিকিনি!

রিও অলিম্পিকে এবার মুখোমুখি হয়েছে এমন দুই খেলোয়াড় যাদের নিয়ে মিডিয়া এখন তোলপাড়। কেউ কেউ এটাকে সংস্কৃতিক সংঘর্ষের সাতে তুলনা করছেন।অলিম্পিকের অকর্ষনীয় খেলাগুলোর মধ্যে ‘বিচ ভলিবল’ অন্যতম। এবার সেখানে দেখা গেছে, বিকিনির প্রতিপক্ষ হিসেবে মাথা ঢাকা হিজাবিদের। যাতে খেলোয়াড় হিসেবে ছিল দু’টুকরো কাপড়ের বিকিনি পরা জার্মানি খেলোয়াড় লোরা লডিগ ও কেরা ওয়ালকেনরস্ট এবং মিশরের হিজাবে ঢাকা নাদা মেওয়াদ ও দোয়া অ্যালগোব্যাসি।

বিচ ভলিবলে হিজাব বনাম বিকিনি- ছবি সংগৃহীত।

বিচ ভলিবলে হিজাব বনাম বিকিনি- ছবি সংগৃহীত।

লন্ডন টাইমস পত্রিকায় এটাকে সাংস্কৃতিক যুদ্ধ বলে অ্যাখা দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে ডেইলি মেইল বলছে, কাপড় দিয়ে আবৃত এবং অনাবৃতদের মধ্যে এটি বড় ধরনের বিভক্ত সৃষ্টি করেছে। অপর দিকে দ্য সান পত্রিকায় বলা হয়েছে- এটা সাংস্কৃতিক বড় কোনো বিভেদ সৃষ্টি করেনি।

তবে টুইটার, ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে বিভিন্নজন ভিন্ন ভিন্ন মন্তব্য করছেন। যেমন ব্রিটেনের দ্য টাইমস পত্রিকার বিখ্যাত কলামিস্ট বলেছেন, হিজাব বনাম বিকিনি; এটা কীভাবে সংস্কৃতিক সংঘর্ষ হয়? এটাই মূল বিষয় যে রিও অলিম্পিকে ভিন্ন পোশাকে ভিন্ন জাতির দুই মেয়ে খেলোয়াড় এক সাথে বিচ ভলিবল খেলেছেন।

সিএনএনের একজন সাংবাদিক তার টুইটারে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে এভাবে বিশ্লেষণ করছেন, আপনি কী এখানে  সাংস্কৃতিক সংঘর্ষ দেখছেন? নাকি খেলার মাধ্যমে একত্রিত হওয়ার যে শক্তি সেটাকে দেখছেন?

তবে যে সাংস্কৃতিক সংঘর্ষের ব্যাপারে গণমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে- সেটাকে অক্সফোর্ড ডিকশনারিতে এভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে, দুটি ভিন্ন সংস্কৃতির মধ্যে সরাসরি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়াই হচ্ছে সাংস্কৃতিক সংঘর্ষ।

বিচ ভলিবলে হিজাব বনাম বিকিনি- ছবি সংগৃহীত।

বিচ ভলিবলে হিজাব বনাম বিকিনি- ছবি সংগৃহীত।

২০১২ সালের অলিম্পিকে ভলিবলে মেয়েদের বিকিনি পরার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট মাপের একটি নিয়ম করে দেওয়া হয়। যেটা কিনা খেলার মধ্যে যৌন আবেদন যোগাতে সাহায্য করেছিল। সেখানে বলা হয়, গলা থেকে নিতম্ব পর্যন্ত মাত্র ৭ সেন্টিমিটারের বেশি কাপড় পরা যাবে না বা একটি মাত্র সুইমিং কস্টিউম পরতে হবে।

এরপর আন্তর্জাতিক ভলিবল ফেডারেশনের নিকট অভিযোগ আসতে থাকে, এই নিয়ম ক্রীড়াবিদদের মনস্তাত্ত্বিকভাবে খেলার কৌশল এবং পারফরমেন্স থেকে তাদের শরীরের প্রতি বেশি অাকর্ষণ সৃষ্টি করবে।

তবে এ ব্যাপারে মিশরীয় ভলি খেলোয়াড় অ্যালগোব্যাসি বলেন, আমি ১০ বছর বয়স থেকে হিজাব পরি। আমি এটাকে কোনোভাবেই বাদ দিতে পারবো না। আমার পছন্দনীয় বিষয়গুলোর মধ্যে এটা একটি।বিচ ভলিবলও তার মধ্যে অন্যতম।

অর্থসূচক/মুন্নাফ

এই বিভাগের আরো সংবাদ