বিয়ের দাওয়াত দিলেই উপহার আসবে ২১টি সাপ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বিয়ের দাওয়াত দিলেই উপহার আসবে ২১টি সাপ

বিয়ে একটি সামাজিক বন্ধন। এই বন্ধনে আবদ্ধের সময় সাধারণত আত্মীয় বা প্রতিবেশিদের দাওয়াত করে খাওয়ানোও একটি সামাজিক রীতি। আর এই সামাজিকতার খাতিরে বিয়ের দাওয়াত খেতে কে্উই খালি হাতে আসেন না। সাধারণত শাড়ি, গয়না বা সংসারে কাজে লাগে এমন কোনো উপহারই দিয়ে থাকেন সকলে।Srimangal_3_banglanews24_355431905

কিন্তু বিয়ের দাওয়াত খেতে এসে কেউ যদি ২১ টি সাপ উপহার দেয় আপনাকে, তবে তা কোন ধরনের সামাজিকতা?

আপনি মানে আর না মানেন, ভারতের একটি অঞ্চলে এটাই সামাজিকতা।দেশটির ছত্রিশগড়ের মহাসমুন্দ জেলার যোগীনগরের বাসিন্দাদের দাওয়াত করলে তার বিয়েতে সাপ উপহার দেন।

স্থানীয় নিয়মানুসারে সেই ২১টি সাপকে পুরো দুই মাস খাইয়ে দাইয়ে তোয়াজ করতে হবে৷ তারপর সেই সাপগুলোকে আবার জঙ্গলে ছেড়ে দিতে হবে!

যোগীনগরে সাপ সন্তানের মতো পালিত হয় প্রতি বাড়িতে৷ কেউ যদি সাপ মেরে ফেলেন তাহলে তাকে বিশাল আয়োজনে শেষকৃত্যের অনুষ্ঠান করতে হবে৷ সঙ্গে অনেক খাওয়া দাওয়া।

যোগীনগর এলাকাটি সাপুড়েদের জন্য প্রসিদ্ধ৷এখানকার বাসিন্দাদের মূল পেশা সাপ ধরা। আর সাপের খেলা দেখানো। ছোট-বড় সবাই মনের আনন্দে গোখরো, কেউটে, চন্দ্রবোড়া, শাঁখামুটিসহ বিভিন্ন ধরনের সাপ ধরে।

যোগীনগরের প্রচলিত রীতি জঙ্গল থেকে সাপ ধরে মাস দুয়েক পর আবার সাপকে জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া।

ছত্তিসগড় বনবিভাগ লাগাতার প্রচার চালিয়েছে-সাপ ধরা নিষেধ। কিন্তু যোগীনগরের বাসিন্দারা তা মানেননি৷ তাদের দাবি প্রচুর সাপ ধরলেও তাদের কোনোরকম ক্ষতি করা হয় না।

সাপ ধরা তাদের সামাজিক রীতি। সেই রীতি অনুসারে যোগীনগরে কোনো বিয়ে অনুষ্ঠিত হলে কন্যাপণ হিসেবে অন্যান্য উপহারের পাশাপাশি ২১টি সাপ দেওয়া হয়। সাপ না দিলে বিয়েই হবে না৷ সাপের সংখ্যা কম পড়লে অন্যদের কাছে সাপ ধার করা হয়।

কলকাতা২৪ অবলম্বনে

এই বিভাগের আরো সংবাদ