ই-টিকেটিং চালু 'করছে' জাজ মিডিয়া
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ই-টিকেটিং চালু ‘করছে’ জাজ মিডিয়া

সিনেমা দেখার আগে হলে গিয়ে লাইন ধরে টিকেট কাটার দিন শেষ হচ্ছে। এখন থেকে দিন- সময় মেপে ঘরে বসেই হলের টিকেট কাটা যাবে। বাংলা সিনেমার প্রতি দর্শকদের আরও আকৃষ্ট করতে এবং টিকেট কালোবাজারে বন্ধ করতে এমন উদ্যোগের কথা জানালো চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া।

ভারত ও বাংলাদেশ জুড়ে এখনো হলগুলোতে রমরমা ব্যবসা করছে গত ঈদের মুক্তি পাওয়ার জাজ মিডিয়ার 'শিকারী'।

ভারত ও বাংলাদেশ জুড়ে এখনো হলগুলোতে রমরমা ব্যবসা করছে গত ঈদের মুক্তি পাওয়ার জাজ মিডিয়ার ‘শিকারী’।

প্রতিষ্ঠানটির ফেসবুক পেজে টিকেট দুর্নীতি নিয়ে বেশ কয়েকজনের হতাশাজনক মন্তব্যের পরিপেক্ষিতে এমন তথ্য জানানো হলো।

তরিকুল ইসলাম টুটুল নামের একজন লিখেছেন,  জাজ মাল্টিমিডিয়ার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি,  আমি আজকে এশিয়ান হলে ছবি দেখতে গেলাম, হলের লোকেরা ৩০ টাকার টিকেট ৬০ টাকা দিয়ে বিক্রি করতেছে। গত সপ্তাহে সনি হলে একই অবস্থা- ৩০ টাকার টিকেট নিলো ১০০ টাকা । এভাবে টিকেট বিক্রি হচ্ছে তাহলে মানুষের আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও কেউ সিনেমা হলে ছবি দেখতে যাবে না।

তিনি আরও লেখেন, এক বছর পরে ২টা ছবি দেখলাম তাও যদি এই অবস্থা হয়, তাহলে তো আর হলে যাওয়া হবে না।

একই অভিযোগের কথা বলেছেন বরিশালের আবির, যশোরের শাওন ও বগুড়ার শাহরিয়ার।

আবির বলেন, বরিশাল অভিরুচি সিনেমায় সবসময়েই দুর্নীতি চলে। ৫০-৬০ টাকার টিকিট বিক্রি হয় ১০০-১২০ টাকায় ব্ল্যাকে। শো শুরুর মাত্র ১০ মিনিট আগে কাউন্টার খুলে দেয়, তার আগে সব টিকিট বাধ্য হয়েই মানুষ ব্ল্যাকে কিনে নেয়!

শাওন উইঙ্গার লেখেন, গতবছর ঈদে যশোর মণিহার সিনেমা হলে অগ্নি ২ দেখেছিলাম। টিকিট কাউন্টারই খুলে নাই। ৫০ টাকার টিকিট ১৫০ টাকা। আবার ডিসিতে সিট নাই। সিঁড়িতে বসে দেখেছি। সাথে ৬ জন বন্ধু ছিল। নাহলে চলে আসতাম। হলে আর যাব না।

আজ সবকিছুই যখন ঘরে বসেই পাওয়া যাওয়া তখন সামান্য হলের টিকেট কেন বাকি থাকবে- জাজ মাল্টিমিডিয়া ফ্যানদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বলছে, ইটিকেটিং এর ব্যবস্থা করছি । এতে কাজ হবে আশা করি।

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ই-টিকেটিং চালু হলে টিকেট কেনার ক্ষেত্রে দুর্নীতি কমবে। হলপ্রেমীরা ন্যায্য দামেই টিকেট কিনে সিনেমা দেখতে পারবেন। তাদেরকে কোনো ধরনের প্রতারণার শিকার হতে হবে না।

এই বিভাগের আরো সংবাদ