প্রণোদনার খবরে চাঙ্গা জাপানি পুঁজিবাজার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

প্রণোদনার খবরে চাঙ্গা জাপানি পুঁজিবাজার

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেছেন, তার সরকার অর্থনীতির ধস ঠেকাতে ২৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা প্রায় ২০ লাখ কোটি বাংলাদেশি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করবে। প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণার পরপরই ঘুরে দাঁড়িয়েছে দেশটির পুঁজিবাজার।

বিবিসির খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবরে বলা হয়, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেন বের হয়ে যাওয়ার পর অর্থনীতিতে সম্ভাব্য নেতিবাচক প্রভাব মোকাবেলা করতে জাপান দেশটির অর্থনীতিতে প্রণোদনা দেবে তা আগেই ধারণা করা হচ্ছিল। তবে তার পরিমাণ এত বেশি হবে তা অনেকেই ভাবতে পারেনি। বেশি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করার মানে হতে পারে-ব্রেক্সিটের কারণে জাপানের অর্থনীতি বেশ ঝুঁকির মুখে পড়তে পারে।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে

তবে অর্থনীতিবিদরা বলছেন, এই প্রণোদনা আসলেই সত্যিকার অর্থে কোনো কাজে আসবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন রয়ে গেছে।

খবরে জানা গেছে, কয়েকদিন পরে প্রণোদনা প্যাকেজের বিস্তারিত তথ্য জানানো হবে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, ওই প্যাকেজের অর্ধেকই ব্যয় করা হবে স্থানীয় এবং কেন্দ্রীয় সরকারের হাত দিয়ে। এর মানে হল, জাপান সরকার নতুন কিছু অবকাঠামো প্রকল্প হাতে নিতে যাচ্ছে যেগুলো অর্থনীতিতে গতি আনতে সরাসরি কোনো প্রভাব ফেলতে সক্ষম হবেনা।

জাপানে গত দুই দশক থেকে শ্রমিক ও চাকরিজীবীদের বেতন তেমন একটা বাড়েনি। আয়ের প্রায় ৬০ শতাংশই প্রয়োজন মেটাতে খরচ হয়ে যায়। সম্প্রতি জাপানিরা তাদের খরচের ব্যাপারে বেশ কড়াকড়ি করতে বাধ্য হচ্ছে। অনেকেই মনে করছেন সামনের দিনগুলোতে অর্থনীতির জন্য কোনো সুখবর নেই।

তবে শিনজো আবে অর্থনৈতিক নীতি নির্ধারণে ৩ টি কৌশল প্রয়োগ করে আসছেন। অর্থনীতিবিদরা যাকে বলছেন ‘আবেনোমিকস’।

এই ৩ কৌশল হল- মুদ্রার মান পতন ঠেকাতে মুদ্রা সরবরাহ বাড়ানো, অর্থনীতিতে চাহিদা জোরদার করতে সরকারি বিনিয়োগ বাড়ানো এবং অর্থনীতিকে আরও উৎপাদনশীল ও প্রতিযোগিতাপূর্ণ করতে কাঠামোগত সংস্কার ।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে একটি বিতর্কিত সিদ্ধান্তের মাধ্যমে আবে ব্যাংক অব জাপানের সুদের হার শূণ্যের নিচে নামিয়ে আনেন। ফলে লোকজন সঞ্চয়ের চেয়ে ব্যয়ের দিকে ঝুঁকতে থাকে। তবে এই উদ্যোগও অর্থনীতিতে উদ্দিপনা জোগাতে ব্যর্থ হয়।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, জাপানের সমস্যা অনেক বড় এবং জটিল আকার ধারণ করেছে, যদিও শিনজো আবের সরকার সেটা মানতে নারাজ। সরকারের পক্ষ থেকে অর্থনীতিতে ব্যাপক সংস্কার সাধন করা প্রয়োজন  বলে মনে করছেন তারা। বিশ্বের ৩য় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ জাপানের অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধার করতে তারা পরামর্শ দিয়েছেন- অবিলম্বে শ্রমশক্তিতে জাপানি নারীদের বেশি মাত্রায় যুক্ত করা এবং বিদেশি নাগরিকদের দেশে কাজের সুযোগ সৃষ্টি করা প্রয়োজন।

প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণার পর জাপানে গুজব ছড়িয়েছে যে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক ‘ব্যাংক অব জাপান’ সুদের হার শূণ্যের আরও নিচে নামিয়ে আনতে পারে।

অর্থসূচক/রাশিদ

এই বিভাগের আরো সংবাদ