নগদ টাকা বিতরণের সময় ‘জঙ্গি’ নেতা আটক
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

নগদ টাকা বিতরণের সময় ‘জঙ্গি’ নেতা আটক

অনুমতি না নিয়ে টেকনাফে রোহিঙ্গাদের নগদ টাকা ও ত্রাণ বিতরণের সময় মিয়ানমারের ‘জঙ্গি’ সংগঠন আরএসও নেতাসহ তিন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে বিজিবি ও পুলিশের একটি যৌথ দল।

আটককৃতরা হলেন, আরএসও এর নেতা ছালামত উল্লাহ (৫০), টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলমের বেয়াই ছৈয়দ করিম ও এক সৌদি নাগরিক।teknaf

শনিবার বেলা ২ টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ সমুদ্র উপকূলের বাহারছড়া এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়ছে বলে বিজিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

বিজিবির এক কর্মকর্তা বলেন, প্রশাসনের অনুমতি না নিয়ে শামলাপুরে বিছিন্নভাবে অবস্থান করা রোহিঙ্গাদের মাঝে বিদেশি নাগরিকসহ কয়েকজন বাংলাদেশি নগদ টাকা ও ত্রাণ বিতরণ করছে এমন খবর পেয়ে বিজিবি অভিযান চালায়।

এ সময় এক সৌদি নাগরিক ও রোহিঙ্গা জঙ্গি সংগঠন আরএসও এর নেতা ছালামত উল্লাহসহ তিন জনকে আটক করা হয়। আটকদের বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়ন দপ্তরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বিজিবি টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল আবুজার আল জাহিদ জানান, উপস্থিতি টের পেয়ে পালাতে গিয়ে ধরা পড়েন বাড়ির মালিক ছৈয়দ করিম ও একজন সৌদি নাগরিক। পরে ছৈয়দ করিমের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার বাড়ির শৌচাগার থেকে ‘জঙ্গি’ নেতা ছালাহুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তবে এ সময় টেকনাফ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ও তার ভাই বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আজিজ উদ্দিন কৌশলে পালিয়ে যেতে সক্ষম হন।

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া একজন কর্মকর্তা বলেন, ওই বৈঠকে জঙ্গি তৎপরতা, রোহিঙ্গাদের অর্থ প্রদান এবং এলাকায় মসজিদ মাদ্রাসা নির্মাণের নামে ১৪ কোটি টাকা বিতরণের কথা ছিল। কিন্তু কৌশলে ওই টাকা সরিয়ে ফেলা হয়েছে। অভিযানের সময় সাংসদ আবদুর রহমান বদি ঘটনাস্থলে গিয়ে ছালাহুলসহ সৌদি নাগরিককে ছাড়িয়ে নিতে চেষ্টা করেছিলেন।

অভিযানের সময় ওই বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়া জন প্রতিনিধি দুই ভাই সাংসদ বদির ঘনিষ্ঠজন।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মজিদ জানান, জঙ্গি নেতা ছালাহুল ইসলামসহ গ্রেপ্তারকৃত তিন ব্যক্তিকে এখনো থানায় হস্তান্তর করা হয়নি। তাদের বিজিবি ব্যাটালিয়নে আনা হয়েছে।

অর্থসূচক/মুন্নাফ

এই বিভাগের আরো সংবাদ