শান্তির উপর হামলা হয়েছে: অর্থমন্ত্রী
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

শান্তির উপর হামলা হয়েছে: অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন,  বাংলাদেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। ভবিষ্যত, এছাড়া অন্য কিছু নয়। আমাদের লক্ষ্য- প্রোসপারিটি, হ্যাপি অ্যান্ড পিসফুল বাংলাদেশ। আজ সেই পিসফুলের (শান্তি) উপর হামলা হয়েছে।

বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পিকেএসএফ কার্যালয়ে ‘উন্নয়নে পিকেএসএফ-২০১৬’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। উন্নয়নে অবদান রাখার জন্য দুই কীর্তিমানকে সম্মাননা দিতে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

muhith

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত-ফাইল ফটো

এরা হলেন- সম্মাননা প্রাপ্তরা হলেন- বাংলাদেশ ফিমেল একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জামিল চৌধুরী ও ভিয়েতনামী নাগরিক মিস পাম থি হংম। অর্থমন্ত্রী কীর্তিমানদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন।

মন্ত্রী বলেন,  যে উন্নয়ন হচ্ছে- এটা আর থামবে না। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, যাবে। ভবিষ্যৎ এছাড়া আর কিছু হতে পারে না। পরবর্তী প্রজন্ম ২০৪১ সালে দেখবে এখনকার পরিকল্পনা মেকি নয়।

পিকেএসএফ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ প্রতিষ্ঠান আমাদের নিজস্ব সৃষ্টি। শুরুতে কোনো বিদেশি সহায়তা ছাড়া সম্পূর্ণ দেশিয় অর্থায়নে আমরা কাজ শুরু করি। বর্তমানে দেশব্যাপী দুই শতাধিক সহযোগী সংস্থার মাধ্যমে মানবকেন্দ্রিক বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মসূচী সফলভাবে বাস্তবায়ন করছে; যার মাধ্যমে দেশের দরিদ্র ও অতিদরিদ্র জনগোষ্ঠী আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ত্ব করেন পিকেএসএফের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ড. কাজী খলীকুজ্জামান।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো. ইউনুসুর রহমান, পিকেএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল করিম।

ইউনুসুর রহমান বলেন, দেশের ব্যাংকিং খাতে বর্তমানে প্রচুর অলস অর্থ পড়ে আছে। নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে পিকেএসএফসহ বিভিন্ন উদ্যোগে পরিচালিত ক্ষুদ্র উৎপাদনমুখী খাতে পর্যাপ্ত ঋণ প্রদান করা যাচ্ছে না।

তিনি বলেন, দেশের ক্ষুদ্র উৎপাদনমুখী খাতে যে পরিমাণ ঋণের চাহিদা তার মাত্র ৪৫ শতাংশ আমরা পূরণ করতে পারি। বাকি ৫৫ শতাংশ পূরণ করা সম্ভব হয়। কারণ নানামুখী খরচের কারণে এখানে ঋণের সুদহার তুলনামূলক অনেক বেশি; প্রায় ২৫ শতাংশ পড়ে যায়। তাছাড়া ঋণ প্রদানের প্রক্রিয়াগুলোও বেশ জটিল। ফলে ব্যাংকিং খাত থেকে এখাতের প্রয়োজনীয় ঋণের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয় না।

এ সময় ক্ষুদ্র ঋণ প্রদানের বিষয়টি সহজ করতে কি করা যায়- তা বিবেচনা করতে অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন সচিব।

অর্থসূচক/শাফায়াত/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ