নিজের সঙ্গে নিজের জীবনের মধু
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

নিজের সঙ্গে নিজের জীবনের মধু

মানুষ বরাবরই একা। নিজের ভেতরেই নিজের বসবাস। সমাজ, রাষ্ট্র এবং পরিবারের মত সংগঠনগুলোর মধ্য দিয়ে সে একাকিত্ব ঘুচানোর অভিনয় করে মাত্র। সে যাই হোক, সম্পর্কের টানা-পোড়েনে কিংবা পরিস্থিতির ফাঁদে পড়ে প্রতিটি মানুষই একাকিত্বের মুখোমুখি হয় এটাই আসল কথা। কিন্তু নিঃসঙ্গ জীবনের মত তেতো স্বাদ বুঝি পৃথিবীতে আর নেই। তাই সবাই সঙ্গ চায়, হয়তো পাওয়াটা সবার হয়ে ওঠে না। সঙ্গ মিলুক বা না মিলুক জীবন তো আর থেমে থাকে না, বরং কৌশলে যাপন করলে তা উদযাপনে পরিণত হয়।lonly

তাই নিঃসঙ্গতার মুহূর্তগুলোকে ‘একান্তের আয়োজন’এ পরিণত করতে, ‘নিজের সঙ্গে নিজের জীবন’ এর মধু খুঁজে নিতে সাতটি উপায় বাতলে দিচ্ছে অর্থসূচক :

প্রথম উপায় ঘুরে বেড়ানো। এতে একাকিত্ব ঘুচার পাশাপাশি জ্ঞান আহরণেরও সুযোগ তৈরি হয়। এক্ষেত্রে নতুন জায়গা বেছে নেওয়া ভালো। আমাদের দেশে এর প্রচলন না থাকলেও বিদেশিরা এই উপায়ে নিজেদের মুহূর্তগুলো উদযাপন করে থাকে।

ঘুরে বেড়াতে মন না চাইলে গান শুনতে পারেন। গান নাকি আবর্জনা দূর করে মনকে সতেজ করে তোলে। বড় বড় দার্শনিকদের কাছে গান শোনাটা অনেকটা মেডিটেশনের মত কাজ করত। এক্ষেত্রে স্বাভাবিক এবং শান্ত গান বেছে নিয়ে একমনে গান শুনতে থাকুন, অল্পক্ষণেই সব জটিলতা কেটে গিয়ে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।

নতুন শখ গড়ে তুলেও সময়কে নিজের মত অতিবাহিত করা যায়। বই পড়া এবং বাগানের মত শখগুলোতে আগে থেকেই অভ্যস্ততা থাকলে নতুন কিছু ভাবুন। এক্ষেত্রে ছবি আঁকার মত শখ গড়ে তুলতে পারলে অন্যদেরও আনন্দ দেয়া সম্ভব। আর বড় কিছু ঘটাতে পারলে নগদ লাভতো আছেই।

নিজেকে ভালবাসুন। ব্যক্তিগত ভালোলাগা এবং পচ্ছন্দকে গুরুত্ব দিলে আত্মবিশ্বাস ফিরে পাবেন। এতে নিজেকে সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রেও এই শক্তি কাজে লাগাতে পারবেন।

পুরোনো সম্পর্কগুলো মেরামত করুন। এতে অন্যদের সাথে হৃদতা বাড়াবে। এমনকি বিস্মৃত বন্ধুর খোঁজ আপনার জীবনকে পাল্টেও দিতে পারে।

গঠনমূলক কাজে অংশগ্রহণ করুন। সমাজের আর দশজনের ভালো লাগা-মন্দ থাকা আপনাকেও আলোড়িত করবে এতে কোন সন্দেহ নেই। এছাড়াও সামজিকতার চর্চা মানুষেরো যোগাযোগ দক্ষতাও বাড়িয়ে দেয়।

সবশেষে ঝেড়ে ফেলুন। মন থেকে সব দুশ্চিন্তা সরিয়ে সব কিছু নতুন করে নিজের মত করে শুরু করুন। ইচ্ছাটাই আসল।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ