গৃহকর্মীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছে ৫% সৌদি পুরুষ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

গৃহকর্মীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছে ৫% সৌদি পুরুষ

বাংলাদেশসহ বহু দেশ থেকে সৌদি আরবে গৃহস্থালীর কাজের জন্য যান নারীরা। এদের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন দেশটির ৫ শতাংশ পুরুষ। সৌদি আরবের বিচার বিভাগের জরিপ সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

২০১৩ ও ২০১৪ সালের হিসাব তুলে ধরে জেদ্দার একটি আদালত জানিয়েছে, অনুমতি সাপেক্ষে সৌদি আরবের এসব স্পন্সর তাদের গৃহকর্মীদের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। এজন্য আদালতের কাছ থেকে রীতিমতো অনুমতিও নিয়েছেন তারা।

বিয়ের পোশাক কেনার জন্য মলে একজন সৌদি পুরুষ। ছবি সংগৃহীত।

বিয়ের পোশাক কেনার জন্য মলে এক সৌদি পুরুষ। ছবি সংগৃহীত।

জরিপে দেখা যায়, আলোচিত ২ বছরে ১৬০ গৃহকর্মীর সঙ্গে বিয়ে করেছেন স্পন্সররা। এর মধ্যে মরক্কো থেকে আসা গৃহকর্মীর সংখ্যা ৯০ জন; ইন্দোনেশিয়া থেকে ৩০ জন; ফিলিপাইন থেকে ১৩ জন এবং শ্রীলঙ্কা থেকে ২২ জন। এছাড়া তিউনিশিয়া থেকে ৫ জন।

তালিকায় বাংলাদেশ থেকে যাওয়া গৃহকর্মীদের বেলায় এমন কাণ্ডের খবর মেলেনি।

মন্ত্রণালয়ের এ সংক্রান্ত এক কমিটির সদস্য আহমেদ আল মাবি জানান, সৌদিতে নারীদের সঙ্গে পুরুষের যেভাবে বিয়ে হয়- একই সংস্কৃতি ছিল বিদেশ থেকে আসা গৃহকর্মী বিয়ের বেলায়ও। প্রথমে ওই পুরুষকে সৌদি সরকারের কাছে আবেদন করতে হয়েছে। এরপর আবেদন গেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। সেখান থেকে অনুমোদন পাঠানো হয়েছে আদালতে।

তিনি বলেন, বিয়ের অনুমতি নেওয়ার জন্য গৃহকর্মীদেরও দূতাবাসের মাধ্যমে তাদের বাড়ি থেকে অনুমতি নিতে হয়েছে।

সৌদির পুরুষরা কেন গৃহকর্মীদের দিকে ঝুঁকছে- এমন প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রণালয়ের এই মুখপাত্র বলেন, স্ত্রী অসুস্থ হলে; তার কাছে অবহেলার পাত্র হলে বা অবহেলার কারণে গৃহকর্মীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে উঠলে স্পন্সররা সাধারণত এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে।

এছাড়া অনেক গৃহকর্মীর সঙ্গে স্পন্সরদের অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে; যার সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই বলে জানান তিনি।

মনোবিজ্ঞানী হানি আল ঘাইতি জানান, একজন পুরুষ তার গৃহকর্মী বিয়ে করেছেন- এটা নিয়ে অনেক সময়ে সমালোচনা উঠে; যেটা ঠিক নয়। এটাকে সাধারণ দৃষ্টিভঙ্গিতে নেওয়া উচিত।

এই বিভাগের আরো সংবাদ