'ভারতে ৭২% উদ্যোক্তাই তরুণ'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘ভারতে ৭২% উদ্যোক্তাই তরুণ’

প্রতিবেশী দেশ ভারতের মোট উদ্যোক্তার ৭২ শতাংশের বয়সই ৩৫ বছরের নিচে বলে জানিয়েছেন দেশটির শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী নির্মলা সিতারামান। তিনি বলেন, ভারতের অর্থনীতিতে পরবর্তী বৃহৎ শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হতে যাচ্ছে ‘স্টার্ট-আপ’ বা নতুন সৃজনশীল উদ্যোগ।

এনডিটিভির অনলাইন সংস্করণে এ তথ্য জানানো হয়েছে। মন্ত্রীর বরাতে খবরে বলা হয়, ভারতে প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট প্রায় ৪ হাজার ৪০০টি স্টার্ট আপ খুলেছেন তরুণ উদ্যোক্তারা। ২০২০ সালের মধ্যে এই সংখ্যা দাঁড়াবে ১২ হাজারে।

ছবিটি প্রতীকী

ছবিটি প্রতীকী

মন্ত্রী দাবি করেন, ভারত হচ্ছে বিশ্বের সর্বকণিষ্ঠ উদ্যোক্তাদের দেশ। যাদের বয়স ৩৫ এর নিচে।

তবে খবরে বলা হয়, স্টার্ট-আপের সংখ্যার দিক দিয়ে ভারতের স্থান বিশ্বে তৃতীয়। প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে আছে যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটেন।

তরুণদের এই উদ্যোগকে আরও গতিশীল করতে সরকারের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেন ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, আমরা স্টার্ট-আপ বিপ্লবের জন্য তৈরি হচ্ছি।

চলতি বছর এপ্রিলে ভারত সরকার ‘স্টার্ট-আপ ইন্ডিয়া হাব’ নামে নতুন উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন প্রশ্ন ও জিজ্ঞাসার জবাব দেওয়ার জন্য একটি কর্মসূচি হাতে নেয়। এই কর্মসূচির মাধ্যমে তরুণ উদ্যোক্তাদের হাতে-কলমে নানা সহযোগিতা ও পরামর্শ দেওয়া হয়।

এই সরকারি সেবাকেন্দ্রে টেলিফোন, ই-মেইল ও টুইটারের মাধ্যম ১৩ হাজারের বেশি জিজ্ঞাসা ও অনুসন্ধান জমা পড়েছে। মানে ভারতীয় তরুণরা তাদের ‘স্টার্ট-আপ’ শুরু করতে বেশ আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

ভারতের সাম্প্রতিক অর্থবিলে স্টার্ট-আপগুলো ৩ থেকে ৫ বছরের জন্য ট্যাক্সমুক্ত সুবিধা পাবে এমন একটি প্রবিধান রাখা হয়েছে। তবে ট্যাক্সছাড় পেতে হলে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন লাগবে।

সরকার স্টার্ট-আপে প্রণোদনা দেওয়ার লক্ষ্যে ১০ হাজার কোটি রুপি বরাদ্দ দিয়েছে। এ তহবিলের ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছে ভারতের ক্ষুদ্রশিল্প উন্নয়ন ব্যাংক।

এই তহবিল ভারতের সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড (সেবি)তে অলটারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড হিসেবে নিবন্ধিত হবে। এই তহবিল থেকে নতুন সব ‘স্টার্ট-আপে’ বিনিয়োগ করা হবে।

অর্থসূচক/রাশিদ

এই বিভাগের আরো সংবাদ