মুক্তিযোদ্ধা শিরিন বানু মিতিল আর নেই
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » বিবিধ

মুক্তিযোদ্ধা শিরিন বানু মিতিল আর নেই

মুক্তিযোদ্ধা ও নারী নেত্রী শিরিন বানু মিতিল (৬৫) আর নেই। গতকাল বুধবার মধ্যরাতে ইন্তেকাল করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি … রাজেউন)।

তার ছেলে তাহসিনুর রহমান নিকো জানান, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শিরিন বানু মিতিলের মৃত্যু হয়েছে। শেষ শ্রদ্ধা জানাতে তার মরদেহ আগামীকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নেওয়া হবে। এরপর নেওয়া হবে কুমিল্লায়; বাদ আছর সেখানে জানাজার নামাজের পর পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

তিনি বলেন, রাত সাড়ে ১১টার দিকে মা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর দ্রুত সময়ে তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট নেওয়া হয়। রাত দেড়টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

Shirin Banu

মুক্তিযোদ্ধা ও নারী নেত্রী শিরিন বানু মিতিল।

১৯৫০ সালের ২ সেপ্টেম্বর পাবনায় খোন্দকার শাহজাহান মোহাম্মদ ও মা সেলিনা বানু দম্পতির ঘরে শিরিন বানুর জন্ম হয়। পাবনা জেলার ন্যাপ সভানেত্রী এবং ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট সরকারের এমপি ছিলেন তার মা সেলিনা বানু। ছাত্রজীবন থেকে ১৯৫২ সাল পর্যন্ত কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন শিরিন বানুর বাবা খোন্দকার শাহজাহান মোহাম্মদ।

ছোটবেলা থেকেই রাজনীতি সচেতন ছিলেন শিরিন বানু; স্কুলজীবনেই যোগ দেন ছাত্র ইউনিয়নে। মুক্তিযুদ্ধের সময় পাবনা এডওয়ার্ড কলেজের বাংলা বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন তিনি। ১৯৭০-১৯৭৩ সাল পর্যন্ত পাবনা জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভানেত্রী এবং কিছু সময়ের জন্য পাবনা জেলা মহিলা পরিষদের যুগ্ম সম্পাদিকা ছিলেন শিরিন।

১৯৭১ সালে ২৫ মার্চ কালরাতে পাক হানাদারদের আক্রমণ শুরুর পর ২৭ মার্চ পাবনা পুলিশ লাইনে প্রতিরোধ যুদ্ধে অংশ নেন শিরিন বানু; সেই সময়ে পুরুষ বেশ ধারণ করেন তিনি। পরদিন পাবনা টেলিফোন এক্সচেঞ্জে পাকসেনার বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নেওয়া একমাত্র নারী তিনি।

৯ এপ্রিল নগরবাড়িতে যুদ্ধের সময় পাবনার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে স্থাপিত মুক্তিযুদ্ধের কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বে ছিলেন শিরিন বানু। ২০ এপ্রিল সীমানা পেরিয়ে ভারতে যান তিনি। সেখানে বাংলাদেশ সরকার পরিচালিত নারীদের একমাত্র প্রশিক্ষণ শিবির ‘গোবরা ক্যাম্পে’ যোগ দেন। পরে মেজর জলিলের নেতৃত্বে পরিচালিত ৯ নম্বর সেক্টরে যোগ দেন শিরিন বানু।

স্বাধীনতার পর ১৯৭৩ সালে তৎকালীন পড়াশোনা করতে সোভিয়েত রাশিয়ায় পাড়ি জমান মুক্তাযোদ্ধা শিরিন বানু। পিপলস ফেন্ডশিপ ইউনিভার্সিটি অব রাশিয়ায় পড়া শেষে ১৯৮০ সালে দেশে ফেরেন তিনি। ১৯৭৪ সালে মাসুদুর রহমানের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। এই দম্পতির এক ছেলে ও দুটি মেয়ে রয়েছে।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ