তুরস্কে অভ্যুত্থানচেষ্টায় প্রভাব পড়েনি পুঁজিবাজারে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

তুরস্কে অভ্যুত্থানচেষ্টায় প্রভাব পড়েনি পুঁজিবাজারে

তুরস্কে সেনা অভ্যুত্থানচেষ্টার পর আজ প্রথম লেনদেন করেছে ইস্তানবুলের শেয়ারবাজার। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ২.৫ শতাংশ পতনে লেনদেন শুরু হয়েছে। তবে এ ঘটনায় এশিয়ার অধিকাংশ পুঁজিবাজারে তেমন প্রভাব পড়েনি।

বিবিসি ও সিএনবিসির খবর থেকে জানা গেছে, তুরস্কের ঘটনা নিয়ে এশিয়া, ইউরোপ ও মার্কিন বাজারে বড় ধরনের আতঙ্ক কাজ করছিল। কিন্তু সে আতঙ্ক আর টিকছে না। মার্কিন পুঁজিবাজারে আজ সোমবার এখনো লেনদেন শুরু হয়নি। এশিয়ার বড় বড় পুঁজিবাজারে দেখা গেছে উর্ধ্বমুখী প্রবণতা।

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

এদিন সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, জাপানের নিক্কেই সূচক বেড়েছে ০.৬৮ শতাংশীয় পয়েন্ট, হংকংয়ে সূচক বেড়েছে ০.৬৬ শতাংশ, অস্ট্রেলিয়ায় বেড়েছে ০.৫৩ শতাংশ, দক্ষিণ কোরিয়ায় বেড়েছে ০.১৯ শতাংশ। ভারতের বাজারও ছিল ইতিবাচক। তবে নেতিবাচক ছিল সাংহাইয়ের বাজার। সাংহাইতে সূচক কমেছে ০.৩৪ শতাংশ।

এদিকে আজ সোমবার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে তুরস্কের মুদ্রা লিরা ছিল ইতিবাচক অবস্থানে। গত সেপ্টেম্বরে ডলারের বিপরীতে লিরার মান রেকর্ড পরিমাণ কমে যায়। কিন্তু সেখান থেকে আজ ঘুরে দাঁড়ায় এ মুদ্রা। এদিন ডলারের বিপরীতে লিরার মান ৩ শতাংশ বেড়েছে।

এর মাধ্যমে তুরস্কের বাজার নিয়ে যে আশঙ্কা ছিল তা অনেকটা কেটে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিনিয়োগকারীরাও নিশ্চিত হয়েছেন, এখন পরিস্থিতি অনেকটা শান্তের দিকে।

সরকারের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে সব ধরনের নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলা হয়েছ।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছে, ব্যাংকগুলোর কাছে তারা পর্যাপ্ত তারল্য সরবরাহ করবে।

আজ সোমবার ইস্তানবুলে ডলারের বিপরীতে লিরার লেনদেন হয় ২.৯২৭- এ। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে যা ছিল ৩.০১৫৭ লিরাতে। সে হিসেবে লিরার মান বেড়েছে প্রায় ২ শতাংশ।

শুক্রবার ইস্তানবুলের ন্যাশনাল ১০০ সূচক বেড়েছিল প্রায় ১৫ শতাংশ; যা ছিল এ বছরে সর্বোচ্চ রেকর্ড।

আজ সোমবার সরকারি বন্ডের লভ্যাংশও বেড়েছে।

তবে এখনও আতঙ্ক রয়েছে পর্যটন শিল্পে; যেটি দেশটির অর্থনীতির জন্য বড় ধরনের অবদান রাখে। গত বছরের তুলনায় মে মাসে দেশটিতে পর্যটকের সংখ্যা ৩৫ শতাংশ কমেছিল।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এ ধরনের সহিংসতা দেশটির পর্যটন শিল্পকে নষ্ট করে দেবে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ