টয়লেটের জন্য ৩ দিন উপোস!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

টয়লেটের জন্য ৩ দিন উপোস!

বাসায় টয়লেট নেই, তাই অনশনে নেমেছে ভারতীয় এক কিশোরী। টানা ৩ দিন অনশনের পর তার জেদের কাছে হার মানল পরিবারের সদস্যরা। বাসায় টয়লেট নির্মাণে রাজি হয়েছে ওই কিশোরীর পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের কর্ণাটকে কোপ্পাল জেলার গঙ্গাভাটি গ্রামে। ১৫ বছরের ওই কিশোরীর নাম মাল্লাম্মা বাগালাপুর। সে ওই এলাকার একটি সরকারি স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী।

শনিবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে এ তথ্য জানানো হয়।

ছবিটি প্রতীকী

ছবিটি প্রতীকী

খবরে বলা হয়, বাসায় টয়লেট বানানোর জন্য বার বার বলার পরও পরিবারের সদস্যরা কর্ণপাত না করায় ১২ জুলাই অনশন শুরু করে মাল্লাম্মা। অবশেষে কোপ্পাল জেলা পঞ্চায়েতের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আর. রামচন্দ্র তার অনশন ভাঙ্গান।

রামচন্দ্র জানান, তিনি ওই গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে টয়লেট নির্মাণের জন্য সবাইকে উদ্বুদ্ধ করার কাজ চালিয়ে আসছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা যখন শুনলাম এক কিশোরী নিজ বাসায় টয়লেটের দাবিতে অনশন করছে তখন আমরা তাকে অনশন ভাঙ্গতে বলি এবং তার মায়ের সাথে কথা বলি। তিনি টাকা এবং বাসায় জায়গার অভাবের কথা বলেন। আমরা তখনই এই দুই সমস্যার সমাধান করি।’

মাল্লাম্মা বলেন, ‘আমি আমার মাকে জানিয়েছি সরকার প্রতিটি দলিত পরিবারের জন্য টয়লেট নির্মাণ খরচ বাবদ ১৫ হাজার রুপি বরাদ্দ করেছে। তারপরও তিনি বলতেন, টয়লেট ব্যবহার করে ধনীরা। গরীবের জন্য টয়লেট নয়। বাসায় টয়লেট বানানোর জন্য রাজি করাতে তখনই আমি অনশনের সিদ্ধান্ত নিই।’

টয়লেট নির্মাণ ব্যয় মেটানোর জন্য সরকারের ভর্তুকির কথা তিনি জানতেন বলে জানিয়েছেন মাল্লাম্মার মা সান্নানিনগাম্মা।

মাল্লাম্মার গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান শাফি শাকেশাওয়ালি বলেন, সরকারি বরাদ্দের টাকা পাওয়া গেছে। সপ্তাহ খানেকের মধ্যেই টয়লেট তৈরি হয়ে যাবে। তিনি বলেন, ‘মাল্লাম্মা অনেক গ্রামবাসীর চোখ খুলে দিয়েছে।‘

অর্থসূচক/রাশিদ/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ